Templates by BIGtheme NET
Home / রাজনীতি / আমজাদ হঠাও, বিএনপি বাঁচাও

আমজাদ হঠাও, বিএনপি বাঁচাও

Meheprur BNP Fire Pic 09.04 (2)মেহেরপুর নিউজ, ০৯ এপ্রিল:
মেহেরপুরের গাংনী উপজেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও বামন্দী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) দুইবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান আবদুল আওয়াল এবারের নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় ২য় দিনের মত তার সমর্থকরা বিক্ষোভ করেছে। পরে জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য আমজাদ হোসেনের কুশপুতুল পোড়ানোর পাশাপাশি প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শনিবার সকাল ১০ টার দিকে বামন্দী বাজার প্রদক্ষিণ শেষে বাসস্ট্যান্ড মোড়ে গিয়ে শেষ হয়। বিক্ষোভ মিছিলে “আমজাদ হঠাও, বিএনপি বাঁচাও” লেখা সম্বলিত একটি ব্যানার নিয়ে জেলা সভাপতি আমজাদ হোসেনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন শ্লোগান দিতে থাকে সমর্থকরা। পরে সেখানে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
প্রতিবাদ সভায় সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা জুলফিকার আলী ভুট্টো, বিএনপি নেতা ও রাইপুর ইউপির চেয়ারম্যান আলফাজ উদ্দীন কালু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক মনিরুজ্জামান গাড্ডু, ইউপি সদস্য রবিউল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। সমাবেশে শেষে আমজাদ হোসেনের কুশপুতল পোড়ানো হয়।
সমাবেশে জুলিফকার আলী ভূট্টু তার বক্তব্যে বলেন, আব্দুল আওয়াল বিএনপির রাজনীতি করতে গিয়ে আনেক ত্যাগ স্বীকার করেছেন। বিভিন্ন সময়ে মামলাসহ নানা হয়রানির ও প্রতিকুলার মধ্য থেকেও বিএনপির সাথে একনিষ্ট ভাবে জড়িয়ে আছে। জেলা বিএনপির সভাপতি আমজাদ হোসেনের একটা ভুল সিদ্ধান্তে এ ইউনিয়নে বিএনপির নিশ্চিত জয়কে হাতছাড়া হওয়ার কোন সুযোগ দেওয়া হবেনা। যে কোন মুল্যে মনোনয়ন পরিবর্তন করতে হবে। যদি দ্রুত তাঁর সিদ্ধান্ত পরিবর্তন না করে তাহলে দলের স্বার্থে আরো কঠোর কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে।
প্রসঙ্গত, ৪র্থ ধাপে অগামী ৭ মে অনুষ্ঠিত হবে গাংনীর ৯টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন । দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে গাংনী উপজেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও বামন্দী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল আওয়াল বিএনপির বিদ্রোহী হিসেবে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.