Templates by BIGtheme NET
Home / ফিচার / আমঝুপিতে মেলার নামে চলছে লটারি ।। বন্ধের দাবি বিভিন্ন সংগঠনের

আমঝুপিতে মেলার নামে চলছে লটারি ।। বন্ধের দাবি বিভিন্ন সংগঠনের

মেহেরপুর নিউজ, ১১ জানুয়ারি:
মেহেরপুর সদর উপজেলার আমঝুপিতে মেলার নামে লটারি ও হাউজি বাম্পার খেলা চালিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে। যদিও এ দটি খেলার কোনো অনুমোদন প্রশাসন দেননি। তারপরও প্রশাসনের নাকের ডগায় শতশত মাইকে ঘোষনা দিয়ে জেলার বিভিন্ন প্রান্তে লটারির টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে।  চমকের নামে পুরস্কার হিসেবে মোটরসাইকেলের সংখ্যাও বাড়ানো হচ্ছে। মঙ্গলবার ১১টি মোটরসাইকেল পুরস্কার দেয়া হয়েছে। একই সাথে স্থানীয় ক্যাবল টিভিতেও সরাসরি সম্প্রচার করা হচ্ছে লটারির বিষয়টি। ফলে প্রান্তিক জনপদের মানুষ টেলিভিশনে পুরস্কার পাওয়ার বিষয়টি দেখে হুমড়ি খেয়ে পড়ছে টিকিট কিনতে।দ্রুত এ জুয়া খেলা বন্ধ না হলে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশংকা করছেন স্থানীয়রা।

মেলার নামে এ ধরনের জুয়াখেলা বন্ধের দাবি জানিয়েছে বিভিন্ন সংগঠন। সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, শিল্প ও বণিক সমিতির সভাপতি, জেলা ঘাদানির সম্পাদক, জেলা সুজনের সেক্রেটারিসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও শিক্ষাবিদ মেলার নামে জুয়া বন্ধের দাবি জানিয়েছেন। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এ নিয়ে নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে।
মেহেরপুর সদর উপজেলার আমঝুপিতে ‘আমঝুপি পাবলিক লাইব্রেরি ও ক্লাবের উন্নয়নের নামে আমঝুপি মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে মেলার অনুমতি নিয়ে চালানো হচ্ছে হাউজি ও র‌্যাফেল ড্র। কোনোদিন তিনটি, কোনোদিন চারটি মোটরসাইকেলসহ অর্ধশত পুরস্কার দেয়া হচ্ছে। মঙ্গলবার র‌্যাফেল ড্র’র পুরস্কার হিসেবে প্রচার করা হয়েছে ১১টি মোটরসাইকেল। প্রতিদিন বিক্রি করা হচ্ছে ২০ থেকে ২৫ লাখ টাকার টিকিট। মাত্র কয়েক লাখ টাকার পুরস্কার দিয়ে সবটাকা ভাগ বাটোয়ারা করা হচ্ছে।  এছাড়া গত সোমবার থেকে সার্কাসশুরু হয়েছে । প্রথম দিনেই অশ্নিল নৃত্যুভরা সার্কাস প্রদর্শন করা হয়েছে বলেে এক দর্শক জানিয়েছেন।

মেলা বন্ধের দাবিদারদের অভিযোগ মেলার লাভের টাকার ভাগ সরকারের স্থানীয় অনেক কর্মকর্তাই পাচ্ছেন। এজন্য মেলার নামে জুয়াখেলা দেখেও না দেখার ভান করছে প্রশাসন। সরেজমিনে মেলার মাঠে দেখা যায় চরকি, হাউজি, প্রতিদিনের র‌্যাফেল ড্র ছাড়া সেখানে মেলার কোনোকিছুই নেই। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনের কাছে তারা মেলার অনুমোদন নিয়ে অবৈধভাবে লটারির নামে লাখ লাখ টাকার বাণিজ্য করছে। মধ্যরাত পর্যন্ত মেলার মাঠের মাইক শব্দ দূষণেরও কারণ হয়েছে। এসএসসি পরীক্ষার্থীরা রাত জেগে লেখাপড়া করতে পারছে না বলেও অনেকেই অভিযোগ করেছেন।এক শিক্ষার্থী অভিযোগ করেছেন যারা মেলার আয়োজক তারা আমঝুপি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা। ভয়ে তারা মেলার মাঠের মাইক বন্ধ করার কথা বলতে পারছেন না।

আমঝুপি পাবলিক ক্লাব ও লাইব্রেরির সভাপতি এবং আমঝুপি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দীন চুন্নুর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ১ জানুয়ারি থেকে ২০ দিনের মেলার অনুমোদন দেন মেহেরপুর জেলা প্রশাসন। লিখিত অনুমোদনপত্রে ৯টি শর্ত উল্লেখ করা হয়েছে। এর মধ্যে ‘জুয়ার আসর ও মাদকমুক্ত রাখা’, ‘গভীর রাতে উচ্চৈস্বরে মাইক না বাজানো’ শর্ত দুটি অন্যতম। অপরদিকে লটারি খেলার কোনো অনুমোদন দেয়া হয়নি ওই অনুমোদনপত্রে।  আওয়ামী লীগ নেতা আমঝুপি ইউপি চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দীন চুন্নু প্রায়ই প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দিচ্ছেন।
জেলা প্রশাসক পরিমল সিংহর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জুয়াখেলার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন আইনশৃংখলা মিটিংয়ে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। পুলিশ সুপারকেও বলা হয়েছে বিষয়টি দেখতে। যদি তেমন হয় তাহলে অবশ্যই মেলা বন্ধ করা হবে।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful