Templates by BIGtheme NET
Home / বিশেষ প্রতিবেদন / নির্ঘুম রাত কাটছে মুজিবনগরের দর্জিদের

নির্ঘুম রাত কাটছে মুজিবনগরের দর্জিদের

afk93bbwkom3[1]আব্দুস সালাম,মুজিবনগর থেকে:
পবিত্র ঈদ উল ফিতর ।আর মাত্র সপ্তাহখানেক বাকি। ঈদের শেষ মুহুর্তে অর্ডারকৃত জামা কাপড় সময়মত তৌর করার লক্ষ্যে নির্ঘুম রাত কাটছে মুজিবনগরে পোশাক তৈরি করার কারিগর দর্জিদের। তাদের হাতে যেন মোটেও সময় নেই, কেননা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তৈরি পোশাক সরবরাহ করতে হবে। তাই পছন্দের পোশাক বানাতে দর্জির দোকান গুলোতে ভিড় করছেন সৌখিন গ্রাহকরা। কেননা বাজার থেকে কেনা বাহারি পোশাকের দাম যেমন চড়া তেমনি মাপেও সঠিক হয় না। মুজিবনগর উপজেলা শহরের বিভিন্ন মার্কেট ঘুরে দেখা যায়, দর্জির দোকানে অর্ডারিরা ভিড় করছেন। উৎসব আসলেই মার্কেট গুলোতে নারীদের পদচারণাও বাড়তে থাকে। দর্জির দোকান গুলোতে নারীদের উপস্থিতি ছিল লক্ষণীয়।
মুজিবনগর কেদারগঞ্জ বাজারের পাপন টেইলার্সে আসা উসমান নামের এক গ্রাহক জানান, ছেলে মেয়েদের চাহিদা অনুযায়ী একটু ভালো কাপড় কিনে বাহারি পোশাক তৈরির জন্য দর্জির দোকানে এসেছি।
মুজিবনগর ভবের পাড়া আনারুল ক্লথ ষ্টোরের সহকর্মী শামিম রেজা জানান, এ বছর ঈদ বাজারে ক্রেতারা চাহিদা অনুযায়ী কাপড় কিনে বিভিন্ন দর্জির দোকানে তাদের পছন্দ মাফিক পোশাক বানাচ্ছে। এদিকে দর্জি দোকান গুলোতে অতিরিক্ত শ্রমিক নিয়োগ করে বিরতি-হীন ভাবে রাত ভর পোশাক তৈরির কাজ চলছে। দর্জিদের নিপুণ হাতের ছোঁয়ায় মান সম্পন্ন পোশাক তৈরির জন্য অর্ডারিরা ছুটছেন বিভিন্ন দোকানে।
মুজিবনগর কেদারগঞ্জ বাজারের কুষ্টিয়া টেইলার্সের মালিক আয়ূব হোসেন জানান, প্রথম রমজান থেকেই কাজের চাপ শুরু হয়েছে এবং ব্যস্ততা বেড়ে যাবার পরও এখনো অর্ডার নিচ্ছি। কারণ, দর্জি কারিগর বেশি থাকার ফলে কাজের কোনো অসুবিধা হচ্ছে না। দর্জি কারিগরা খুব ব্যাস্ত সময় পার করছে কেউ মাপ নিচ্ছে, কেউ কাপড় কাটছে, কেউ আবার সেলাই করছে, কেউবা বোতাম লাগিয়ে ইস্ত্রি করে অর্ডার বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য পোশাক তৈরি করে সাজিয়ে রাখছে। ঈদের সময় সবাই চায় নতুন পোশাক পরতে। রেডিমেড দোকানে একই নকশার অনেক পোশাক থাকে। তাই নিজের পছন্দ মতো কাপড় কিনে বানাতে দেই অনেকেই ।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.