Templates by BIGtheme NET
Home / বর্তমান পরিপ্রেক্ষিত / নির্বাচন কমিশন দুইভাবে ব্যার্থ হয়েছে……..ড. বদিউল আলম মজুমদার

নির্বাচন কমিশন দুইভাবে ব্যার্থ হয়েছে……..ড. বদিউল আলম মজুমদার

Dr Bodiul Alom Mojumder picমেহেরপুর নিউজ, ০৫ জুন:
সু শাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) এর সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেছেন, নির্বাচন কমিশন দুই ভাবে ব্যার্থ হয়েছেন। সুষ্ঠ নির্বাচন না করা ও নিজের দোষ অন্যের উপর চাপানো। সদ্য সমাপ্ত বিতর্কিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেশে ব্যাপক হানাহানি, সহিংসতা ও মনোনয়ন বানিজ্য হয়েছে। শুধু বিরোধী দলের সাথেই নয়, সরকারী দলের লোকজনের মধ্যেও হানহানি ও সংঘাতের কারণে তারা বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।
রবিবার সকাল ১০ টার দিকে গাংনীতে দি হাঙ্গার প্রজেক্ট বাংলাদেশ ও গণগবেষণা সমিতির (জিজিএস) দ্বিতীয় উপজেলা সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদানের পূর্বে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিসি এসব কথা বলেন।
ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, নির্বাচনের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক উত্তরণের কথা থাকলেও সদ্য সমাপ্ত নির্বাচনে সেটার প্রতিফলন হয়নি। আর এর দায় নির্বাচন কমিশনকে নিতে হবে। নির্বাচন কমিশন একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান। সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে তাদের দায়িত্ব ছিলো সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন নিশ্চিত করা। যেহেতু, তারা (নির্বাচন কমিশন) সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ব্যার্থ হয়েছে। তাই এ ব্যার্থতার ইসিকেই নিতে হবে।
তিনি আরো বলেন, ব্যার্থ নির্বাচন কমিশনের বিতর্কিত নির্বাচনের কারনে আমাদের দেশের নির্বাচনী ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে। বিতর্কিত নির্বাচনের কারনে যে নির্বাচনী প্রক্রিয়া ভেঙ্গে পড়েছে সেই নির্বাচন কমিশন নিয়ে ক্ষমতাশীনদের ও আমাদের দেশের রাজনৈতিক দলগুলো সহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ভাবতে হবে, খুজতে হবে উত্তরণের পথ। না হলে, আমাদের দেশে সংকট আরো ঘনিভূত হবে।
Dr Bodiul Alom Mojumder pic-01ড. মজুমদার বলেন, সদ্য সমাপ্ত বিতর্কিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেশে যে সহিংসতা ঘটেছিলো এ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে সেটার অবসান ঘটেছে। এছাড়া যথাসময়ে নির্বাচন হওয়ায় সংবিধান রক্ষা হয়েছে। কিন্তু নির্বাচনটি গ্রহণযোগ্য হয়নি। কারণ, নির্বাচনে ব্যাপক কারুচুপি, সহিংসতা, হানাহানি ও মনোনয়ন বানিজ্য হয়েছে।
তিনি বলেন, বিরোধী দল না থাকলে দেশে গণতন্ত্র থাকেনা। একটি শক্তিশালী বিরোধী দল গণতন্ত্রকে শক্তিশালী করে। বিরোধী দলকে রাজনীতি করার যায়গা করে দিতে হবে। যাতে করে বিরোধী দল মানুষের চাওয়া পাওয়া নিয়ে মানুষের কল্যাণে বিভিন্ন দাবী দাওয়া নিয়ে কাজ করতে পারেন।
পরে গাংনী উপজেলা মিলনায়তনে গণগবেষণা সমিতি (জিজিএস) এর দ্বিতীয় সম্মেলন শুরু হয়।
গণগবেষণা সমিতি (জিজিএস) এর গাংনী উপজেলা শাখার আহবায়ক আব্দুর রবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, গাংনী উপজেলা চেয়ারম্যান মোরাদ আলী, উপজেলা মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান লাইলা আরজুমান বানু, জাতীয় কন্যা শিশু অ্যাডভোকেসি ফোরামের মেহেরপুর জেলা শাখার সভাপতি সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সিরাজুল ইসলাম স্যার, নারী নেত্রী নুরজাহান বেগম, গণ গবেষণার সমš^য়কারী আযাদ আবুল কালাম, দি হাঙ্গার প্রজেক্ট বাংলাদেশ এর আঞ্চলিক সমন্বয়কারী খোরশেদ আলম, সু শাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) এর উপজেলা সভাপতি অধ্যাপক আব্দুর রশিদ। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দি হাঙ্গার প্রজক্টের গাংনী উপজেলা সমš^য়কারী হেলাল উদ্দীন, ধানখোলা ইউনিয়ন নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আখেরুজ্জামান, ষোলটাকা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান, বামন্দি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শহিদুল হক বিশ্বাস, জিজিএস প্রতিনিধি ফরিদা পারভিন, সাহাজুল ইসলাম সাজু, এনামুল হক প্রমুখ।
সম্মেলনে বিভিন্ন ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান, সদস্য, সংরক্ষিত নারী সদস্য, গণগবেষণা সমিতির (জিজিএস) সমিতির সদস্যবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.