Templates by BIGtheme NET
Home / বর্তমান পরিপ্রেক্ষিত / নির্বাচন শেষ ।। চলছে ভোট গণণা ।। পিরোজপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র নিয়ে বিতর্ক

নির্বাচন শেষ ।। চলছে ভোট গণণা ।। পিরোজপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র নিয়ে বিতর্ক

Meherpur picমেহেরপুর নিউজ, ২৩ এপ্রিল:
৩য় ধাপে মেহেরপুর সদর উপজেলার চারটি ইউনিয়নে সুষ্ঠু ভোটগ্রহণ হলেও পিরোজপুর ইউনিয়নের পিরোজপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রটি এ নির্বাচনকে কলঙ্কিত করলো। কেন্দ্রটিতে সকাল থেকে আ.লীগ প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট ছাড়া অন্য কোনো প্রার্থীর এজেন্টদের ঢুকতে দেয়া হয়নি। কেন্দ্রের একটি বুথে থাকা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পোলিং অফিসার জানান, আ.লীগ প্রার্থীর লোকজন বুথের মধ্যে ঢুকে প্রকাশ্যে ব্যালট পেপারে সিল মেরেছে। এমনকি স্বয়ং প্রার্থীর বিরুদ্ধেও ব্যালটে সিল মারার অভিযোগ পাওয়া যায়। এছাড়া সকালের দিকে আমঝুপি বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে পুলিশের লাঠিচার্যসহ বিভিন্ন কেন্দ্রে ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে যেতে বাধা দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ভোট গণণা চলছে।

সকাল ১১ টার দিকে পিরোজপুর ইউনিয়নের পিরোজপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে থাকা আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সালেহ আল আজিজ টনিক বিশ্বাসের এজেন্ট ওসমান গণি অভিযোগ করে বলেন, কেন্দ্র থেকে আ.লীগের প্রার্থীর এজেন্টরা তাদের এজেন্টের বের করে দিয়েছে। তিনি অভিযোগ করে আরো বলেন, প্রিজাইডিং অফিসারকে মৌখিকভাবে জানানো হলে তিনি অপরাগতা প্রকাশ করে লিখিত অভিযোগ দেয়ার কথা বলেন। লিখিত অভিযোগ দেয়ার পর কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি।
একই কেন্দ্রে বিএনপি প্রার্থী সামসুল আলম অভিযোগ করে বলেন, এই কেন্দ্রে বিএনপির ৬ জন এজেন্ট দেয়া হয়েছিল। কিন্তু তাদের ভোট শুরু হওয়ার পরই বের করে দেয়া হয়েছে।
পরে দুপুর ১ টার দিকে আ.লীগ প্রার্থী আব্দুস সামাদ বাবলু বিশ্বাস স্বয়ং ভোট কেন্দ্রে প্রবেশ করে একাই প্রকাশ্যে সিল মারা শুরু করেন। এসময় সেখানে একজন সাংবাদিক থাকলে তাকেও ভোট কেন্দ্র থেকে বের করে দেন আ.লীগ প্রার্থী। প্রিজাইডিং অফিসার বলেন, তাদের এজেন্ট দিতে বলা হয়েছে কিন্তু তারা দেননি।
তবে এ ব্যাপারে রির্টানিং কর্মকতা আনিসুর রহমান বলেন, এ ধরণের কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে সেধরণের কিছু হয়ে থাকলে বা প্রিজাইডিং অফিসার কোনো উদ্যোগ গ্রহণ না করে থাকে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
সকাল ১০ টার দিকে আমঝুপি বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে আ.লীগ প্রার্থী বোরহান উদ্দিন চুন্নুর কর্মী সেলিম রেজা জুয়েল জোরপূর্বক কেন্দ্রে ঢোকার চেষ্টা করলে পুলিশ তাকে বাধা দেয়। এ সময় সেলিম রেজা পুলিশের এস আই নাজমুলক ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। এর পরপরই পুলিশ উত্তেজিত হয়ে লাঠিচার্য শুরু করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এর পরপরই আমঝুপি বালক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটারদের আ.লীগ প্রার্থী বোরহান উদ্দিন চুন্নুর ছেলে সবুজ, কাউসার আলী, চানা মিয়া ও রবি সহ বেশ কয়েকজন কর্মী বাধা দেয় বলে অভিযোগ করেন আমঝুপির জোয়ার্দার পাড়ার খলিলুর রহমান, মাজেদুল ইসলাম ও মেহেদী হাসান।
এছাড়া কুতুবপুর ইউনিয়নের শোলমারি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আ.লীগ ও বিএনপি প্রার্থীর কর্মীদের মধ্যে এক দফা ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ঘটনা ঘটলেও কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.