Templates by BIGtheme NET
Home / বর্তমান পরিপ্রেক্ষিত / পিরোজপুরে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে স্থানীয়দের বিক্ষোভ, স্কুলে তালা

পিরোজপুরে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে স্থানীয়দের বিক্ষোভ, স্কুলে তালা

মেহেরপুর নিউজ, ২৪নভেম্বর :
12মেহেরপুরে ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের সিদ্ধান্ত ছাড়াই প্রধান শিক্ষক নিয়োগের পাঁয়তারা করার অভিযোগ তুলে সভাপতি আব্দুস সামাদ বাবলু বিশ্বাসের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ও বিদ্যালয়ে তালা লাগিয়ে প্রতিবাদ করেছে কমিটির সদস্য, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা। এর ফলে বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা প্রবেশ করতে পারেননি এবং কোনো পাঠদান হয়নি।
বৃহস্পতিবার সকালে মেহেরপুর সদর উপজেলার পিরোজপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত আব্দুস সামাদ বাবলু বিশ্বাস সদর উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এবং জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন।
বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ইস্রাফিল হোসেনের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধা ইদ্রিস আলী, স্থানীয় ইউপি সদস্য হিমাদুল ইসলাম, অভিভাবক লাল্টু হোসেন, মিয়ারুল ইসলাম, সাইদুর রহমান টুটুল, বাবুল মন্ডল, নজরুল ইসলাম, ইউনুস মন্ডল, মতি মন্ডলসহ এলাকার অর্ধশতাধিক অভিভাবক ও শিক্ষার্র্থী বিক্ষোভ করে। এসময় তারা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুস সামাদ বাবলু বিশ্বাসের বিরুদ্ধে বিভিন্ন শ্লোগান দিতে থাকে।
বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক জানান, বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখি স্থানীয়রা আমাদের তালার সাথে আরো দুটি তালা লাগিয়েছে। তাই আমরা বিদ্যালয়ের ভিতরে প্রবেশ করতে পারিনি এবং কোনা ক্লাসও হয়নি। তবে মেহেদী রেজাকেও তারা প্রধান শিক্ষক হিসেবে চাই না। তারা বলেন, সহকারী প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বে থাকাকালে সিনিয়র শিক্ষকদের তিনি সাথে খারাপ আচরণ করতেন।
বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী ফিরোজ আলীসহ কয়েকজন জানায়, মেহেদী রেজা স্যারকে প্রধান শিক্ষক হিসেবে মানি না। তিনি বদমেজাজী একজন শিক্ষক।
বিক্ষোভকারীরা জানান, স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক মেহেদী রেজাকে প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয়ার জন্য গত ১৬ তারিখে সহকারী শিক্ষক নারায়ণ পোদ্দারকে প্রধান শিক্ষকের (ভারপ্রাপ্ত) দায়িত্ব নিয়েছেন। গ্রহণ করতে দেননি প্রধান শিক্ষক প্রার্থী মেহেদী রেজা। অথচ দরখাস্ত জমা নিয়েছেন প্রধান শিক্ষক প্রার্থী মেহেদী রেজা নিজেই। তারা আরো অভিযোগ করেন, সভাপতি ওই শিক্ষককে নিয়োগ দেয়ার জন্য মোটা অংকের বানিজ্য করেছেন ।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) নারায়ণ পোদ্দার বলেন, তিনি চুয়াডাঙ্গাতে একটি প্রশিক্ষণে আছেন। তিনি বিষয়টি জানার পর ম্যানেজিং কমিচির সভপতিকে জানিয়েছেন তবে শিক্ষা অফিস বা প্রশাসনের কাউকে জানাননি বলে স্বীকার করেছেন। তিনি আরো বলেন, গত ১৬ অক্টোবর দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। তার আগেই প্রধান শিক্ষক প্রার্থী সহকারী প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বে থাকার সময় দরখাস্ত গ্রহণ করেছেন। অথচ বিধি মোতাবেক প্রধান শিক্ষক প্রার্থী দরখাস্ত গ্রহণ করতে পারেন না।
মুক্তিযোদ্ধা ইদ্রিস আলী বলেন, গোপনে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের সকল কাজ শেষ করা হয়েছে। আজ ২৫ নভেম্বর প্রধান শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ওই পরীক্ষা বাতিল করতে হবে। না হলে বিদ্যালয়ের তালা খোলা হবে না।
ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ইস্রাফিল হোসেন বলেন, বিষয়টি নিয়ে এর আগে সভাপতি আব্দুস সামাদ বাবলু বিশ্বাসের সাথে কথা বলা হয়েছে । তিনি সমাধানের আশ্বাস দিয়েছিলেন। কিন্তু সমাধান না করে তিনি উল্টো গোপনে নিয়োগের সকল প্রক্রিয়া করেছেন। ফলে তার ওই মিথ্যা আশ্বাসের মধ্যে আমরা নেই। মেহেদী রেজার নিয়োগ বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত তালা খোলা হবে না।
তবে বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুস সামাদ বাবলু বিশ্বাস বলেন, স্থানীয় বিএনপি-জামায়াত কিছু লোক একত্র হয়ে ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে। শনিবার থেকে স্কুল চলবে। লোকজনের যদি তাকে প্রধান শিক্ষক হিসেবে পছন্দ না করে তাহলে নতুন করে আবার নিয়োগ প্রক্রিয়া করতে হবে এবং শুক্রবারের নিয়োগ পরীক্ষাও হবে না। তবে তার বিরুদ্ধে তোলা অভিযোগ সঠিক নয় বলে তিনি দাবি করেন।
জেলা শিক্ষা অফিসার সুভাষ চন্দ্র বলেন, প্রধান শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ার প্রতিবাদে স্থানীয়রা স্কুলে তালা ঝুলিয়েছেন বিষয়টি তাকে কেউ জানায়নি। তবে লিখিত অভিযোগ পেলে ওই নিয়োগ বন্ধের ব্যাপারে ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান। প্রধান শিক্ষক প্রার্থী নিজে ওই পদের জন্য অন্য কারো নিয়োগের আবেদন গ্রহণ করতে পারেননা বলেও তিনি জানান।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful