Templates by BIGtheme NET
Home / বর্তমান পরিপ্রেক্ষিত / ফলোআপ:: মেহেরপুরে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনায় তিন মামলা, ইটভাটা এলাকা মাইকিং

ফলোআপ:: মেহেরপুরে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনায় তিন মামলা, ইটভাটা এলাকা মাইকিং

মেহেরপুর নিউজ,০৭ ডিসেম্বর:
মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার মটমুড়া গ্রামে পুলিশের সঙ্গে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনায় পুলিশের উপর আক্রমন চালিয়ে পুলিশকে আহত করা, অস্ত্র উদ্ধার ও বিষ্ফোরক দ্রব্য আইনে ও চাঁদাবাজির দায়ের তিনটি পৃথক মামলা দায়ের করেছে।
মঙ্গলবার রাতে গাংনী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শংকর কুমার ঘোষ বাদি হয়ে পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় নিহত তিনজনসহ অজ্ঞাত ১৬/১৭জনকে আসামি করা হয়েছে।
এদিকে ইটভাটাগুলোতে চাঁদাবাজি বন্ধে ইটভাটা এলাকায় সন্ধ্যা থেকে ভোর চারটা পর্যন্ত সর্বসাধারনের চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করে পুলিশের পক্ষ থেকে ইট ভাটা মালিকরা এলাকায় মাইকিং করেছে। বন্ধুকযদ্ধে ঘটনায় তিন জন নিহত হওয়ার পর এলাকার চাঁদাবাজ ও চরমপন্থীরা গা ঢাকা দিয়েছে এবং ব্যবসায়ীদের মাছে স্বস্তি ফিরে এসেছে বলে দাবি পুলিশের।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নিহতের পরিবারের লোকজনের কাছে মরদেহগুলো হস্তান্তর করা হলে তারা নিজ গ্রামে নিয়ে গিয়ে তদের দাফন করেছেন।
গাংনী থানা সুত্রে জানা গেছে, চলতি বছরে ইটভাটাগুলো তাদের কার্যক্রম শুরু করার পর থেকে চরমপন্থি ও চাঁদাবাজ পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন ইটভাটায় হামলা করে শ্রমিকদের নির্যাতনসহ চিরকুট দিয়ে চাঁদা আদায় করে আসছিল। এ ঘটনায় গত সোমবার দুপুরে পুলিশ প্রশাসন ও ইটভাটা মালিকদের নিয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। মতবিনিময় সভায় চাঁদাবাজদের আগমনের বিষয়টি পুলিশের কাছে জানানোর জন্য বলা হয়।
গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন জানান, বন্দুক যুদ্ধের ঘটনায় পুলিশের উপর আক্রমন চালিয়ে পুলিশকে আহত করা, অস্ত্র উদ্ধার ও বিষ্ফোরক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৩টা মামলা হয়েছে। মামলার অজ্ঞাত আসামীদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে। ইটভাটা মালিক সহ সাধারণ মানুষ যাতে নির্বিঘ্নে ব্যবসা বানিজ্য ও স্বাভাবিক জীবন নিয়ে চলতে পারে পুলিশের পক্ষ থেকে কাজ করা হচ্ছে। তিনি আরো জানান, ইটভাটা এলাকায় ভাটা সংশ্লিষ্ট ছাড়া সাধারন মানুষের চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করে ভাটা মালিকদের মাইকিং করতে এবং সন্ত্রাসীদের আগমনের তথ্য জরুরী ভিত্তিতে দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।
উল্লেখ্য, মঙ্গলবার ভোর রাত ৪টার দিকে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার মটমুড়া গ্রামের খবির উদ্দিনের ইটভাটা এলাকায় পুলিশের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে গাংনী উপজেলার মানিকদিয়া গ্রামের আলতাফ হোসেনের ছেলে তাজমুল হোসেন (২৭), চাঁদ আলীর ছেলে মহিবুল ইসলাম (২৪) এবং একই উপজেলার ভোলাডাঙ্গা গ্রামের ফকির মহাম্মদের ছেলে তুহিন হোসেন (২১) নিহত হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, একটি এলজি শাটার গান, ২ রাউন্ড তাজা গুলি,২টি রামদা ও ২টি হাত বোমা উদ্ধার করেছে। একই ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে তাদের ৬ সদস্য আহত হয়েছে বলে দাবি করা হয়। নিহতরা চরমপন্থিদলের সদস্য বলেও পুলিশ দাবি করে। তবে স্থানীয়রা দাবি করেন তারা এলাকার চিহিৃত মাসুদ-পিচ্চি বাহিনীর নতুন সদস্য।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.