Templates by BIGtheme NET
Home / ফিচার / মেহেরপুরের গ্রামগুলোতে ঈদের দিন অসহনীয় লোডশেডিং

মেহেরপুরের গ্রামগুলোতে ঈদের দিন অসহনীয় লোডশেডিং

মেহেরপুর নিউজ, ১৭ জুন:

পবিত্র ঈদ উল ফিতরের দিন মেহেরপুরের তিন উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে অসহনীয় লোডশেডিংয়ের ঘটনা ঘটেছে। প্রচন্ড খরতাপ ও বিদ্যুতের অসহনীয় লোডশেডিংয়ে জনজীনব বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে।
ঈদের দিন বিভিন্ন কলকারখানা, অফিস সমূহ বন্ধ থাকলেও কি কারণে ঘন ঘন লোডশেডিং তা বুঝে উঠতে পারেনি গ্রাহকরা। গ্রাহকদের দাবি সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ কতৃপক্ষ অকারণে লোডশেডিং দিয়ে মানুষের আনন্দের ঈদকে নষ্ট করেছে।
বিদ্যুতের এই লোডশেডিং বন্ধ না হলে সাধারণ মানুষ যে কোন সময় বিদ্যুৎ কতৃপক্ষের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠতে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার গাড়াবাড়িয়া, কাথুলী, করমদি, বেতবাড়িয়া, সদর উপজেলার উজুলপুর, আমঝুপি, ঝাউবাড়িয়াসহ বিভিন্ন গ্রামে বিদ্যুতের ভেলকিবাজিতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়ে জনজীবন। বিশেষ করে গাড়াবাড়িয়া, কাথুলীসহ ওই এলাকায় একবার গেলে দেড় থেকে দুই ঘন্টা পর্যন্ত লোডশেডিং দেওয়া হয়েছে।
গাংনী উপজেলার বেতবাড়িয়া গ্রামের জান্নাতুল জানান, তাদের গ্রামে চাঁদ রাতে সারারাত বিদ্যুৎ ছিল না। ঈদের দিন বিকাল পর্যন্ত কয়েকবার যাওয়া আসা করেছে। পাঁচ মিনিটে পাঁচ বার যাওয়া আসার ঘটনাও ঘটেছে। ঈদের দিন সবকিছু বন্ধ থাকার পরও কেন যে এমন করেছে বোধগম্য নয়।
করমদি গ্রামের মিজানুর রহমান নামের একজন ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন, আজকাল বিদ্যুৎ আর যায় না মাঝে মাঝে আসে।
সদর উপজেলার শোলমারি গ্রামের আনোয়ার হোসেন জানান, বিদ্যুত সীমাহীন দুর্ভোগে জনজীবন অতিষ্ঠ। সকোরের ভাবমূতি ক্ষুন্ন করার জন্য মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুত জনগণকে কষ্ট দিচ্ছে। এত বিদ্যুত উৎপাদনের পরেও মেহেরপুর বাসী কাক্সিখত সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ কৃতপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তিনি।
এ ব্যাপারে মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুত সমিতির জেনারেল ম্যানেজার রেজাউল করিমকে ফোন করা হলে তিনি ফোন রিসিভ না করায় কি সমস্যার কারণে এ ধরণের লোডশেডিং ছিল তা জানা যায়নি।

 

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.