Templates by BIGtheme NET
Home / বর্তমান পরিপ্রেক্ষিত / মেহেরপুরে ইউরোপে আম পাঠাতে না পেরে কোটি টাকা লোকসানের মুখে বাগান মালিকরা

মেহেরপুরে ইউরোপে আম পাঠাতে না পেরে কোটি টাকা লোকসানের মুখে বাগান মালিকরা

মেহেরপুর নিউজ, ২১ জুন:
চলতি মৌসুমে মেহেরপুর জেলার ৭০টি বাগানের প্রায় ৯ লক্ষ আমকে ফ্রুট প্রটেকটিং ব্যাগে সংরক্ষন করা ২৫০ মেট্রিক টন আম রপ্তানী করা সম্ভব হয়নি। আম সংরক্ষনের জন্য বাগান মালিকরা শুধু মাত্র প্যাকেট কিনেই প্রায় ৩০ লক্ষ টাকা গচ্চা দেওয়াসহ প্রায় কোটি টাকা লোকসানের মুখে পড়েছে।

আম ভাঙার শেষ মুহুর্তে চুক্তি মোতাবেক আম না নেওয়ায় বিপুল পরিমান আম পচন ধরে। অনেক চাষী আশায় বুক বাধলেও তাদের হতশায় ডুবতে হয়েছে।

জেলার সদর উপজেলার আমদহ গ্রামের আম চাষী হারুন অর রশিদ জানান, চুক্তি মোতাবেক তার কাছে ৩৮ হাজার ফ্রুট প্রটেকটিং ব্যাগ বিক্রি করা হলেও তার কাছে থেকে একটি আম নেওয়া হয়নি।

মুজিবনগর উপজেলার বাগোয়ান গ্রামের জামাল উদ্দিন জানান, চুক্তি মোতাবেক আমি ৩৭ হাজার ব্যাগ নিয়েছিলাম। কিন্তু আম কেনা তো দুরের কথা কোন খোজ খবর তারা রাখেনি। যে করনে এখন আমি লক্ষ টাকা লোকশানের মুখে পড়েছি।

সরজমিনে ঘুরে দেখা যায়, গাছে থাকা প্যাকেট জাত করা পচে নষ্ট হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গতবছর জেলার বিভিন্ন এলাকার ১৫টি বাগান থেকে আম নেয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহযোগীতা রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান। ওই বছর ১৫টি বাগানের ৪৫ হাজার আম বাছাই করে রপ্তানিকারকদের চাহিদামত এক ধরণের কার্বন ব্যাগে সংরক্ষন করে পাঠানো হয়। যা থেকে চাষীরা লাভবান হন। তাই বছর রপ্তানীর লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২৫০ মেট্রিক ট্রন। ফলে ৭০টি বাগানের প্রায় ৯ লক্ষ আমকে ফ্রুট প্রটেকটিং ব্যাগে সংরক্ষন করা হয়। প্রতিটি ব্যাগ আমচাষীদের কিনতে হয়েছে সাড়ে তিন টাকা করে। কিন্তু এবছর আম না নেওয়ার জেলার ৭০ জন চাষী চরম লোকশানের মুখে পড়েছে।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.