Templates by BIGtheme NET
Home / বর্তমান পরিপ্রেক্ষিত / মেহেরপুরে ইসলামি ব্যাংকের এটিএম বুথে টাকা নেই, গ্রাহকদের ভোগান্তি

মেহেরপুরে ইসলামি ব্যাংকের এটিএম বুথে টাকা নেই, গ্রাহকদের ভোগান্তি

বুথ বন্ধ থাকায় এটিএম কার্ড হাতে নিয়ে ফিরে যাচ্ছেন এক গ্রাহক

বুথ বন্ধ থাকায় এটিএম কার্ড হাতে নিয়ে ফিরে যাচ্ছেন এক গ্রাহক

মেহেরপুর নিউজ,১২ সেপ্টেম্বর:
জেলা শহরের বিভিন্ন ব্যাংকের এটিএম বুথে টাকা থাকলেও মেহেরপুরের ইসলামি ব্যাংকের এটিএম বুথে টাকা নেই। এর ফলে ওই ব্যাংকের গ্রাহকরা চরম ভোগান্তিতে পড়েছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশ অনুযায়ী ঈদের ছুটিতে বুথে প্রর্যাপ্ত টাকা রাখা ও নিরপত্তার নিশ্চয়তার কথা থাকলেও গত রবিবার সন্ধ্যা থেকে ব্যাংকের এটিএম বুথে কোন টাকা নেই।
বুথে টাকা না থাকাই চাকুরীজীবী ও ঈদের ছুটিতে আসা কয়েকশ গ্রাহক এটিএম বুথে টাকা তুলতে এসে টাকা না পেয়ে হয়রানির শিকার হয়ে ফিরে গেছেন। এছাড়াও ওই ব্যাংকের শাখাতে নানা ভাবে গ্রাহকদের হয়রানির শিকার হতে হয় বলে অভিযোগ রয়েছে। টাকা না পেয়ে কয়েকজন গ্রাহক আজ সোমবার সকালে বিষয়টি মোবাইলে ব্যাংকের ব্যাবস্থাপককে আবগত করলেও কোন সুরহা হয়নি।
বুথের সামনে বসে থাকা সিকিউরিটি গার্ড জানায় বুথে টাকা নেই তাই বুথ বন্ধ রাখা হয়েছে। সকালের দিকে ম্যানেজার স্যার একবার এসে ছিলেন । টাকা না পেয়ে কেউ হট্টগোল করেছে কিনা তা জানতে চেয়ে চলে যান।
বুথে টাকা তুলতে আসা চাকুরীজীবি সানাউল হক বলেন, ঢাকা থেকে সকালে বাড়ি এসেছি। ইসলামি ব্যাংকের বুথে টাকা তুলতে গিয়ে দেখি বুথ বন্ধ। তিনি আরো জানান, গত ঈদুল ফিতরের সময়ও বুথ বন্ধ ছিল।
আপর গ্রাহক রবিউল ইসলাম বলেন, ব্যাংকের ম্যানেজারকে সকালের দিকে ফোন করলে তিনি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানান কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা নেননি।
ইসলামি ব্যাংকের সিনিয়র প্রিন্সিপল আফিসার (শাখা ব্যবস্থাপক) এ এইচ এম মোস্তাফা কামাল মুঠোফেনে বলেন, এটিএম বুথের টাকা শেষ হওেয় যাওয়ার কারনে এটি এম বুথ বন্ধ রাখা হয়েছে। ব্যংক খোলার আগে আর বুথ চালুকরা সম্ভাব হবেনা। কেন্দ্রীয় ব্যংকের নির্দেশনা সম্পকে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সবাই ছুটিতে গ্রামে চলে গিয়েছে, তাছাড়া কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে কোনো নির্দেশনা আমাদেরকে জানানো হয়নি।
এদিকে ক্ষুব্ধ গ্রাহকরা অভিযোগ করে জানান, শুধু বুথে টাকা থাকাই নয়। নানাভাবে ইসলামি ব্যাংকের মেহেরপুর শাখার গ্রাহকরা হয়রানির শিকার হচ্ছে।
শহরের মিনারুল ইসলাম নামের এক ব্যবসায়ী অভিযোগ করে বলেন, সম্প্রতি তার একটি সিসি ঋণ দেয়ার কথা বলে ব্যাংকে হিসাব খোলার পর সেখানে লক্ষ লক্ষ টাকা লেনদেন করার পরও বিনা অযুহাতে সেই ঋণ দেওয়া হয়নি। এমনকি বিষয়টি নিয়ে ব্যাংক ম্যানেজার মোস্তফা কামালের সাথে কথা বলা হলে তিনি ঔধ্যত্তপূনূ আচরণ করেন।

এদিকে খোজ নিয়ে জানাগেছে অগ্রনী ব্যাংক ও উত্তরা ব্যাংকের এটিএম বুথে টাকা না থাকায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছে গ্রাহকরা।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.