Templates by BIGtheme NET
Home / বর্তমান পরিপ্রেক্ষিত / মেহেরপুরে এরফান হত্যা মামলার আটক ৪ আসামী কারাগারে

মেহেরপুরে এরফান হত্যা মামলার আটক ৪ আসামী কারাগারে

মেহেরপুর নিউজ, ১৫ জুলাই:
মেহেরপুর সদর উপজেলার যাবদপুর গ্রামের এরফান আলী হত্যার সাথে জড়িত রাজ্জাক, এলাহী, আজিজুল ও শাহ জামালকে জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত । রবিবার ৪ জন আসামী আদালতে আত্মসর্ম্পণ করে জামিনের আবেদন করলে আদালত তাদের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠাবার নির্দেশ দেন। এলাহী সদর উপজেলার রাজপুর গ্রামের কালাচাঁদ এর ছেলে, আঃ রাজ্জাক আলামীনের ছেলে, শাহ জামাল আত্তাব এর ছেলে এবং তাজিমুল আজিবারের ছেলে।
উল্লেখ্য, গত ২৪ জুন নিহত এরফান তার ২য় স্ত্রীর বাড়ি রাজাপুর গ্রামে বেড়াতে যায়। এসময় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আসামীরা তার ওপর হামলা চালায়। মারাত্বক আহত অবস্থায় এরফানকে প্রথমে মেহেরপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে পরে রাজশাহী রেফার্ড করার পর গত ৩০ জুন রাজশাহীতে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় সে মৃত্যুবরণ করেন। পরে ঐ সন্ধায় তার লাশ মেহেরপুর নেওয়া হলে সেখানে মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেন গ্রামবাসীরা।
এদিকে ২৪ জুন হামলার ঘটনায় মেহেরপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। পরে এরফানের মৃত্যু হলে ঐ মামলাটি হত্যা মামলায় রুপ নেয়। এদিন আসামীরা মেহেরপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জামিনের আবেদন জানালে রাষ্ট্রের পক্ষে ইন্সপেক্টর আঃ আওয়াল তাদের জামিনের বিরোধীতা করেন। বিচারক মোঃ শাহীন রেজা আসামীদের জামিন মঞ্জুর না করে কারাগারে পাঠাবার নির্দেশ দেন। মামলায় আসামীদের পক্ষে এ্যাড. মিয়াজান আলী কৌশুলী ছিলেন। পরে বিকালে আসামীদের কারাগারে পাঠানো হয়। তার আগে ২৪ জুন মামলার পর পরই আসামীরা আত্মগোপন করে। আসামীদের আটক করার জন্য যাদবপুর গ্রামের সব শ্রেণী পেশার মানুষ পুলিশের প্রতি আহবান জানান।

ছবি-১৪
টানা ৭দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ার পর মেহেরপুর সদর উপজেলার খোকসা গ্রামের আলিফ হোসেন মৃত্যুর কাছে হার মানলেন। গতকাল রবিবার দুপুরের দিকে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে আলিফ মৃত্যু বরণ করেন। আলিফ মেহেরপুর সদর উপজেলার আমঝুপি ইউনিয়নের খোকসা গ্রামের শাহিদুল ইসলামের ছেলে। গত সোমবার সকালের দিকে আলিফ তার পাওয়ার ট্রিলার করে খোয়া নিয়ে মেহেরপুর আসার সময় পথি মধ্যে চাঁদবিল নামক স্থানে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পার্শ্বে একটি গাছের সাথে ধাক্কা মারে। এতে আলিফ মারাত্বক আহত হয়। তার পাওয়ার ট্রিলারটির ব্যাপক ক্ষতি হয়। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে মেহেরপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসাপাতালে পরে ঢাকায় রেফার্ড করা হয়। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তার লাশ ঢাকা থেকে রওনা দিয়েছে।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful