Templates by BIGtheme NET
Home / বিশেষ প্রতিবেদন / মেহেরপুরে জ্বীনের বাদশা সেজে অভিনব কায়দায় প্রতারনা

মেহেরপুরে জ্বীনের বাদশা সেজে অভিনব কায়দায় প্রতারনা

মেহেরপুর নিউজ ২৪ ডট কম,২৯ জুন :

“জ্বীন রেহেনা, শিরিনা আম খেতে চেয়েছে। সাথে দেশী শাদা মুরগীর মাংস। তুই যদি দিস; তবে দে। নয়ত তোর স্বামী মারা যাবে। তোকে যে স্বর্ণগুলি দিয়েছি তা পিতলে পরিণত হবে। ঠিক এক মাস বাদে স্বর্ণের বাক্সটি খুলবি”। এ ধরনের কথা বলে মোতালেব নামের এক প্রতারক মেহেরপুর শহরের সার্কিট হাউসপাড়া থেকে ৮৫ হাজার টাকা নিয়ে লাপাত্তা মেরেছে।
জানা গেছে, সম্প্রতি মেহেরপুর শহরের সার্কিট হাউসপাড়া অবসর প্রাপ্ত সেনা সদস্য আক্কাচ আলীর বাড়ি থেকে একটি স্বর্নের চেন হারায়ে যায়। এ ঘটনার কয়েক দিন পরে মেহেরপুর গাংনী উপজেলার ধলা গ্রামের আলীর ছেলে শামীম এবং একই উপজেলার কাথুলী গ্রামের মুকুলের ছেলে মোতালেব আক্কাচ আলীর বাড়িতে প্রবেশ করে।  ওই সময় গৃহকর্তার অনুপস্থিতিতে শামীম তার সংগে আসা মোতালেবের ব্যাগে ৪ জন জ্বীন বন্দি রয়েছে এমন কথা বলে আক্কাচের স্ত্রী রোজির মন গলিয়ে ফেলে ওই সময় রোজি তার হারানো চেন ফিরে পেতে জ্বীনের সহযোগিতা কামনা করলে প্রতারক মোতালেব ও শামীম পিতলের একটি টুকরো (যাতে খেলা ছিল ২২ ক্যারেট) এবং ৩ টি চেইন রোজির হাতে দিয়ে বলে এ ¯^র্ণগুরো রেখে দে। কাউকে কিছু বলবি না। এর বিনিময়ে ৮৫ হাজার টাকা দিবি। এক মাস পরে তোর হারিয়ে  যাবা চেন ফিরে পারি এবং এ স্বর্ণগুলো (৫ ভরি) দ্বিগুনে পরিণত হবে। কিন্তু সাবধান এক মাসের আগে কাউকে কিছু বলতে পারবি না। আমি কয়েক দিন পরে এসে টাকা নিয়ে যাব। ওই ঘটনার কয়েক দিন পরে মোতালিব এসে ৮৫ হাজার টাকাসহ জ্বীনের খাবার হিসেবে ২০ কেজি আম, ৪টি শাদা দেশি মুরগী নিযে যায়। এ দিকে গতকাল মঙ্গলবার এক মাস পুরা হওয়ায় রোজ তার স্বামী আক্কাচকে ঘটনা বলার পরে প্রতারকের রেখে যাওয়া চেইন এবং সোনার দলাটি খুলে দেখে সেগুলো কালছে হয়ে গেছে। তাৎক্ষনাত সোনাগুলো ¯র্^নের দোকানে পরীক্ষা করে দেখেন ওই গুলো আসলেই পিতলের দলা ও ইমিটেশনের চেন। ওই ঘটনার পর মেহেরপুর সদর থানায় একটি এজহার দাখিল করা হয়েছে।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.