Templates by BIGtheme NET
Home / ব্যবসা ও বানিজ্য / মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতাল গেটে মেহেরুল্লাহ ফার্মেসী তুঘলকি কান্ড ।। ২৭৯ টাকার ঔষধ বিক্রি করলেন ৭৮০ টাকায়।। দম্ভোক্তি বিক্রেতার

মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতাল গেটে মেহেরুল্লাহ ফার্মেসী তুঘলকি কান্ড ।। ২৭৯ টাকার ঔষধ বিক্রি করলেন ৭৮০ টাকায়।। দম্ভোক্তি বিক্রেতার

m-1মাহবুবুল হক পোলেন,বিশেষ প্রতিনিধি:
মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতাল গেটে মেহেরুল্লা ফার্মেসীর বিরুদ্ধে  হাসপাতালের রোগীর স্বজনদের ঠোকিয়ে ২৭৯ টাকার  ঔষধ ৭৮০ টাকায় বিক্রয়ের লিখিত অভিযোগ  পাওয়া গেছে। মেহেরপুরের জেলা প্রশাসক, সিভিল সার্জন সহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে এ অভিযোগ পত্র দাখিল করা হয়েছে।
মেহেরপুর শহরের তাঁতিপাড়ার বাসিন্দা সৈয়দ আব্দুল্লাহ বাপ্পি  তার লিখিত অভিযোগ পত্রে বলেন,গত ০৬ জানুয়ারী ২০১৪ ইং তারিখ তার  স্ত্রী মোছাঃ সনিয়া আক্তার সুমিকে ডেলিভারি জনিত কারনে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক গত ৭ জানুয়ারী ডেলিভারির ঠিক আগ মূহূত্বে কয়েকটি প্রয়োজনীয় ঔষধ এর ব্যবস্থা পত্র দিয়ে সেগুলো সংগ্রহের জন্য আমাকে নির্দেশ দেন। আমি হাসপাতালে চিকিৎসকের নির্দেশ মত হাসপাতাল গেটের মেহেরুল্লা ফামেসী থেকে ওষুধ গুলি ক্রয় করি। ওষুধ গুলি ক্রয়ের সময়  দোকানদারের আচারন আমার সন্দেহ হওয়ায় ঔষধের ব্যবস্থা পত্রটি ও ৭৮০ টাকার ঔষধের ভাউচার আমি সংগ্রহে রাখি এবং পরবর্তিতে শহরের কয়েকটি  ঔষধের দোকান ঔষধ গুলোর গায়ের প্রকৃত মূল্য যাচাই করে দেখি।  উক্ত মেহেরুল্লা ফার্মেসী আমার কাছ থেকে কয়েক গুণ ঔষধের দাম বেশী নিয়েছে। যাহা তুলনা মূলক চিত্র নিম্মে তুলে ধরা হলো। ষুধগুলোর প্রকৃত মূল্য ২৭৯ টাকা হলেও ফার্মেসীর মালিক আমার কাছ থেকে নিয়েছেন ৭৮০ টাকা।  ওষুধগুলোর মধ্যে ইন্জেকশন ইফিড্রিন এর দাম ১২ টাকা হলেও নেওয়া হয়েছে ১০০ টাকা। ইথিকনের ১২০/২ এর মূল্য ২৩০ টাকা হলেও  নেওয়া হয়েছে ৩৯০ টাকা।  হ্যাক্সিসল এর দাম প্রকৃত মূল্য ৪০ টাকার বিপরীতে নেওয়া হয়েছে ১৩০ টাকা।
মেহেরপুর সিভিল সার্জন কার্যলয় থেকে জানা গেছে,অতিরিক্ত মূল্যে ঔষধ বিক্রির একটি অভিযোগ পত্র পাওয়া গিয়েছে । এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে।
মেহেরপুর কেমিস্ট এন্ড ড্রাগিষ্ট সমিতির আহবায়ক মোঃ আনারুল ইসলাম মিয়া বলেন, মেহেরুল্লা ফামেসীর বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগপত্র পেয়েছি। সমিতির আহবায়ক পরিষদ একসাথে বসে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত নেব।
মেহেরুল্লা ফার্মেসীর মালিক মিয়া  বলেন,  ইনজেকশন ইফিড্রিন এর দাম ১২ টাকা হলেও এখন তা বিক্রি হয় ২০০-৪০০ টাকায়। হাসাপাতাল গেটের এমন কোন ঔষধের দোকানদার নেই যে এমন দামে ঔষধ বিক্রি করেনা। এখানে সকল ঔষধের দাম রাখা হয় চড়া । তিনি দম্ভের সাথে আরো বলেন  লিখবেন লিখেন, একটু ভালো করে লিখেন কিছু  হবেনা, ক্ষনিকের অপমান অপদস্থ আর কিছুনা

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.