Templates by BIGtheme NET
Home / আইন-আদালত / মেহেরপুরের দরবেশপুরের তৈয়ব আলীকে হত্যার দায়ে ৩ মহিলার যাবজ্জীবন কারাদন্ড

মেহেরপুরের দরবেশপুরের তৈয়ব আলীকে হত্যার দায়ে ৩ মহিলার যাবজ্জীবন কারাদন্ড

3333মেহেরপুর নিউজ,০৯ মার্চ:
মেহেরপুর সদর উপজেলার দরবেশপুর গ্রামের তৈয়ব আলী হত্যার দায়ে ৩ মহিলার যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও প্রত্যেকের ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরো ৬ মাসের সশ্রম কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন মেহেরপুর জেলা ও দা্য়রা জজ আদালত। কারাদন্ডপ্রাপ্তরা হলো: দরবেশপুর গ্রামের কোরবান আলীর স্ত্রী খোদেজা খাতুন, তার মেয়ে কাজলী খাতুন এবং প্রতিবেশী টেংরার স্ত্রী জ্যেতী।
সোমবার দুপুরে মেহেরপুর জেলা ও দায়রা জজ রবিউল হাসান আসামী ও রাষ্ট্রপক্ষের শুনানী পর্যালোচনা করে এ আদেশ দেন। শুনানীতে ১৪ জন্য সাক্ষী আদালতে স্বাক্ষ্য প্রদান করে। রাষ্টপক্ষের কৌশুলী হিসেবে অতিরিক্ত পি পি অ্যাড. কাজী শহিদুল হক এবং আসামী পক্ষে অ্যাড. আতাউল হক শুনানীতে অংশ নেন।
মামলার এজাহারে জানা গেছে, ২০০৭ সালের ৬ আগষ্ট সদর উপজেলার দরবেশপুর গ্রামের তৈয়ব আলী পাওণা টাকা চাইতে গেলে ও তার স্ত্রীকে মারধরের প্রতিবাদ করতে গেলে খোদেজা খাতুনের নেতৃত্বে তার মেয়ে কাজলী ও প্রতিবেশী জৌতী তৈয়ব আলীকে মারধর করে অত:পর দিবালোকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। ঘটনার দিনই তৈয়বের স্ত্রী ফেরদৌসী বাদি হয়ে ওই ৩ মহিলাকে আসামী করে সদর থানার একটি মামলা দায়ের করেন যার নং-০৫, এবং জি আর কেস নং-৩০৬/২০০৭। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মেহেরপুর সদর থানার এস আই শওকত প্রায় দুই মাস তদন্ত শেষে তাদের অভিযুক্ত করে ৯ সেপ্টম্বর আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। এর পর দীর্ঘ শুনানী শেষে মেহেরপুর জেলা ও দায়রা জজ রবিউল হাসান সোমবার দুপুরে অভিযোগ প্রমানিত হওেয়ায় অভিযুক্ত খোদেজা খাতুন, তার মেয়ে কাজলী খাতুন ও প্রতিবেশী জ্যেতীর বিরুদ্ধে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও  প্রত্যেকের ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরো ৬ মাসের সশ্রম কারাদন্ডের আদেশ দেন।
444ফ্লাশব্যাক:
ঘটনার ৭/৮ মাস আগে তৈয়ব আলী বারাদি বাজারের একটি দোকান থেকে এক বান ঢেউটিন এবং একটি এনজিও সংস্থা থেকে সাপ্তাহিক ১৫০ টাকা হারে কিস্তি ধার্য করে একটি লোন করে দেন। এ ঘটনার পর থেকে খোদেজা খাতুন ঢেউটিনের টাকা এবং কিস্তির টাকাও পরিশোধ করতে ঝামেলা করেন। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে তৈয়বের স্ত্রী ফেরদৌসী টাকা চাইতে গেলে খোদেজার নেতৃত্বে তার লোকজন ফেরদৌসীকে মারধর করে। পরে খবর পেয়ে তৈয়ব আলী খোদেজার বাড়ি যেয়ে ঘটনার প্রতিবাদ জানালে খোদেজা খাতুন, তার মেয়ে কাজলী খাতুন এবং প্রতিবেশী টেংরার স্ত্রী জ্যেতী তৈয়ব আলীকে মারধর শেষে শ্বাসরোধ করে দিবালোকে হত্যা করে।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.