Templates by BIGtheme NET
Home / নির্বাচন / মেহেরপুর পৌর নির্বাচন :: কে পরবেন জয়ের মালা ?

মেহেরপুর পৌর নির্বাচন :: কে পরবেন জয়ের মালা ?

মিজানুর রহমান/মুজাহিদ মুন্না, ২৩ এপ্রিল:
শেষ ঘন্টায় এসে দাঁড়িয়েছে মেহেরপুর পৌর নির্বাচন। এখন হিসাব নিকাশ কষার সময়। শেষ সময়ে এমনটিই করছেন প্রার্থী ও তাদেও নেতাকর্মীরা। আর ভোটাররা শেষ সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন ব্যালটে সিলটি কার প্রতীকে মারবেন। তবে শহরের বিভিন্ন প্রান্তের ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে মূল লড়াইটা হবে ধানের শীষ ও নৌকার মধ্যে। মোটামোটিভাবে পিছিয়ে নেই বর্তমান মেয়রও ।
তবে সুষ্ঠ ভোট নিয়ে বিএনপি প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র শংকা প্রকাশ করলেও রির্টানিং কর্মকর্তা জানিয়েছেন নিরপেক্ষ ভোটগ্রহণের সকল প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।
এবারের নির্বাচনে মেয়র পদে লড়ছেন আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী জেলা যুবলীগের আহবায়ক মাহাফুজুর রহমান রিটন (নৌকা), বিএনপি মনোনিত প্রার্থী পৌর বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর বিশ্বাস (ধানের শীষ), স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মেহেরপুর পৌরসভার দীর্ঘ দিনের মেয়র মোতাচ্ছিম বিল্লাহ মতু (নারকেল গাছ) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী সাংস্কৃতি কর্মী ও জেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নিশান সাবের (মোবাইল ফোন) প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন। তবে ভোটারদের ধারনা বিএনপি, আওয়ামীলীগ ও বর্তমান মেয়র মোতাচ্ছিম বিল্লাহ মতুর মধ্যেই ত্রিমুখী লড়াই হবে।
তফসিল ঘোষণার পর থেকেই মেহেরপুরে জমে উঠেছে পৌর নির্বাচন। ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণে করতে ভোটারদের দারে দারে ঘুরছেন প্রার্থীরা। তুলে ধরেছেন নির্বাচনী অঙ্গীকার। দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি। চায়ের দোকান, রাস্তা-ঘাট, খেলার মাঠে সবখানেই চলছে নির্বাচনী আড্ডা। ভোটারা করছেন নানা হিসাব নিকাশ।
পৌর কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ১৭.৬০ বর্গ কিলোমিটার এলাকা নিয়ে ১৮৬৯ সালের ১৫ এপ্রিল দেশের দ্বিতীয় পৌরসভা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয় দেশের ঐতিহ্যবাহী এই পৌরসভা। তখন পৌরসভার প্রথম প্রশাসক ছিলেন ডা. রমেশ চন্দ্র মজুমদার। তবে প্রথম নির্বাচিত চেয়ারম্যান হন খন্দকার আমিরুল ইসরাম পালু। মেহেরপুর পৌরসভায় বর্তমানে ভোটারের সংখ্যা ৩০ হাজার ৯শ ৬৫। যার মধ্যে নারী ভোটার ১৫ হাজার ৭শ ৩২ জন ও পুরুষ ভোটার ১৫ হাজার ২শ ৩৩ জন।
এবারের মেহেরপুর পৌরসভা নির্বাচন অনেকটা ঝুঁকিপূর্ণ হবে বলে জানিয়েছে এলাকাবাসী। বিগত কয়েকটি নির্বাচন পর্যালচনা করে দেখা গেছে পৌরসভা এলাকায় বিএনপি ভোট বেশি হলেও প্রাধান্য অনেকটা সমানে সমান। তবে এবারের নির্বাচনে ভোটাররা ভোট প্রদানের ক্ষেত্রে অনেক হিসাব নিকাশ করছেন। তাই কে পরবর্তি মেয়র হচ্ছে সেটা বলা অনেকটায় কঠিন। এখন পর্যন্ত জটিল সমিকরণের মধ্যে দিয়ে চলছে নির্বাচনে জয় পরাজয়ের হিসাব নিকাশ।
বর্তমান মেয়র মোতাচ্ছিম বিল্লাহ মতু তিনবার নির্বাচনে জয়লাভ কওে একনাগাড়ে ২৪ বছর মেয়রের দায়িত্ব পালন করছেন। সীমানা নির্ধারণ সংক্রান্ত মামলা করিয়ে কয়েক দফা নির্বাচন পিছিয়ে সাধারণ ভোটারদের মনে প্রশ্ন তৈরি করেছেন। এত কিছুর পরও তার নিজ¯^ ভোট ব্যাংক রয়েছে যা দিয়ে তিনি এবার নির্বাচনের জয়লাভের আশা প্রকাশ করেছেন।
আওয়ামীলীগ প্রার্থী মাহাফুজুর রহমান রিটন জেলা যুবলীগের আহবায়ক হওয়ার পর মেহেরপুরে যুবলীগের রাজনীতিতে নতুন করে প্রাণ ফিরিয়েছেন। পৌর এলাকার তরুণ ভোটারদের ভিতরে তার ব্যাপক জনপ্রিয়তা তৈরি করতে সক্ষম হয়েছেন। এছাড়াও এলাকার গরিব ও অসহাই মানুষের নানা সময়ে পাশে থেকে তার নিজের একটা ইমেজ তৈরি করতে সক্ষম হয়েছেন তিনি।
এদিকে বিএনপির প্রার্থী জাহাঙ্গীর বিশ্বাস পৌর বিএনপির সভাপতি হিসেবে দীর্ঘ দিন দায়িত্ব পালন করছেন। ছাত্রদলের রাজনীতি করে ওঠে আসা জাহাঙ্গীর বিশ্বাস মেহেরপুর সরকারী কলেজের নির্বাচিত ভিপি ছিলেন। রাজনীতি করতে গিয়ে বার বার কারাভোগ করেছেন। সেই সাথে কর্মী বান্ধব নেতা হিসেবে সাধারণ মানুষের ভালোবাসাও কুড়িয়েছেন। গত নির্বাচনে তিনি মাত্র ৩২৭ ভোটের ব্যবধানে বর্তমান মেয়রের কাছে পরাজিত হন। তাই এবারের নির্বাচনে ভোটারদের ধারণা মূল লড়াইটা তার সাথে হবে।
স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান মেয়র মোতাচ্ছিম বিল্লাহ মতু বলেন, ২৪ বছরের সফল মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। কি করেছি আর কি করিনি তা সকলেই জানে। আল্লাহ যদি আমাকে সম্মানিত করে তবে আবারও মেয়র নির্বাচিত হবো। আমি বিশ্বাস করি এবারও ভোটারা আমাকে বিপুল ভোটে জয়ী করবেন। তবে তিনি সুষ্ঠ ভোট হওয়া নিয়ে শংকা প্রকাশ করে বলেন, নির্বাচনে আমার কর্মীদের সব সময় হুমকি প্রদান করা হচ্ছে। তাছাড়া এবারের নির্বাচনে প্রতিটা কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ন বলে তিনি আশংকা করেছেন। অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠিত করতে কর্মকর্তাওে সঠিক দায়িত্ব পালনের আহবান জানান।
অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী সাংস্কৃতিক কর্মী নিশান সাবের বলেন, আমি সত্যকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য চেষ্টা করছি। আমার কিছু সত্য নির্বাচনী অঙ্গিকার মানুষের মাঝে তুলে ধরেছি। এখন ভোটাররা বিবেচনা করবে তারা সত্যর সঙ্গে থাকবে না মিথ্যাকে বেছে নিবে তাদের রায় প্রদানের জন্য।
এদিকে বিএনপি প্রার্থী জাহাঙ্গীর বিশ্বাসও সংশয় প্রকাশ করছেন সুষ্ঠ নির্বাচন নিয়ে। তবে সুষ্ঠ নির্বাচন হলে তিনি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। তিনি বলেন, মেহেরপুরের মানুষ সব সময় ধানের শীষে ভোট দেয়। তিনি আশাবাদ ব্যাক্ত করে আরো বলেন, এবারও তারা তাদের প্রিয় প্রতীক ধানের শীষকে বেছে নিবে ভোট দেওয়ার জন্য। নির্বাচন উপলক্ষে এখন মেহেরপুর বিএনপিতে আবার নতুন করে যৌবন এসেছে সকলে এককাতারে এস ধানের শীষের জন্য লড়াই করছে।
আওয়ামীলীগের মনোনিত প্রার্থী জেলা যুবলীগের আহবায়ক মাহাফুজুর রহমান রিটন বলেন, দল আমাকে মনোনয়ন দিয়েছে। আমিই মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হবো। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, বিগত কয়েকবছর ধরে এলাকার হতদরিদ্র মানুষদের নানাভাবে সেবা করে আসছি। যেটা কেউ করেননি। এছাড়া বিগত দিনে যারা মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন তারা এলাকার মানুষের উন্নয়নে কিছু করেননি। এছাড়া আওয়ামীলীগের সকল নেতাকর্মীরা বিভেদ ভুলে গিয়ে আমার জন্য কাজ করছেন।
এবিষয়ে জানতে চাইলে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রির্টানিং অফিসার রোকনুজ্জামান বলেন, আমরা প্রতিটা কেন্দ্রকে অধিক গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনা করছি। নির্বাচন সুষ্ঠ করতে সকল প্রস্তুতি রয়েছে। তিনি বলেন, নির্বাচনে বিজিবি মোতায়ন ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের নেতৃত্বে একাধিক টিম কাজ করবে।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful