Templates by BIGtheme NET
Home / নির্বাচন / মেহেরপুর পৌর নির্বাচন :: ১ নম্বর ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে লড়াই হবে জাহাঙ্গীর ও লাকির মধ্যে

মেহেরপুর পৌর নির্বাচন :: ১ নম্বর ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে লড়াই হবে জাহাঙ্গীর ও লাকির মধ্যে

মেহেরপুর নিউজ, ০৯ এপ্রিল:
আগামী ২৫ এপ্রিল মেহেরপুর পৌরসভা নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থীরা প্রচার প্রচারণা নিয়ে ব্যাস্ত সময় পার করছে। নির্বাচনী প্রতীক পাওয়ার পর কাক ডাকা ভোর থেকে শুরু করে গভির রাত পর্যন্ত নিজ নির্বাচনী এলাকা চষে বেড়াচ্ছেন প্রার্থীরা। এনিয়ে মেহেরপুর নিউজ তুলে ধরে প্রতিটি ওয়ার্ডের সাধারণ ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর প্রার্থীদের নির্বাচনের খবর। প্রথম ধাপে আজ তুলে ধরা হচ্ছে পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থীদের ভোট যুদ্ধের খবর। মেহেরপুর নিউজের প্রধান প্রতিবেদক মিজানুর রহমানের ধারাবাহিক প্রতিবেদনের আজ ১ম পর্ব।
এক নম্বর ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে লড়ছেন ৪ জন প্রার্থী। তারা হলেন, বিএনপি সমর্থিত মীর জাহাঙ্গীর (পানির বোতল), সাবেক কাউন্সিলর মোয়াজ্জেম হোসেন( উট পাখি), সাংবাদিক জিএফ মামুন লাকি ( পাঞ্জাবি) ও মোঃ রাজিব (টেবিল ল্যাম্প) । তবে মূল প্রতিন্দীতা হবে মূলত মীর জাহাঙ্গীর ও জিএফ মামুন লাকির মধ্যে এমনটায় মনে করছেন সাধারণ ভোটরা।
কোর্ট পাড়া, উপজেলা পরিষদ পাড়া, মিশন পাড়া, ঘোষ পাড়া, শহীদ গফুর সড়ক, হোটেল বাজার পাড়ার পশ্চিম অংশ, পুরাতন পোষ্ট অফিস পাড়া, বোস পাড়ার দক্ষিণ অংশ মিলে ৪ হাজার ৫শ ৬৫ জন ভোটার নিয়ে গঠিত পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড।
ভিআইপি থেকে শুরু করে নিম্ম শ্রেণী পেশার মানুষ এই ওয়ার্ডে বসবাস করে। দীর্ঘ ৬ বছরের বেশি সময় ধরে বর্তমান পরিষদ থাকলেও এলাকা বাসীর অভিযোগ রয়েছে বিস্তর। এই ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর মনিরুল ইসলাম এবারের নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন না। আগের নির্বাচনে এই ওয়ার্ড থেকে নির্বাচিত কাউন্সিলর মিজানুর রহমান রিপন সন্ত্রাসীদের বোমা হামলায় নিহত হলে উপ-নির্বাচনে কাউন্সিলর নির্বাচিত হন মনিরুল ইসলাম। কিন্তু তিনি নির্বাচিত হয়ে এলাকার উন্নয়নে তেমন কোন ভুমিকা রাখতে পারেননি বলে ভোটারা মনে করেন। একারণে আসন্ন নির্বাচনে তিনি অংশ নিচ্ছেন না। উপ নির্বাচনে মনিরুল ইসলামের কাছে সামান্য ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন মীর জাহাঙ্গীর।

উপর থেকে: লাকি,জাহাঙ্গীর, মোয়াজ্জেম ও রাজিব

মীর জাহাঙ্গীর :

ঘোষ পাড়ার মীর নুর ইসলামের ৪ ছেলের মধ্যে জ্যেষ্ঠ সন্তান মীর জাহাঙ্গীর। তিনি মূলত একজন ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিতি। পাশাপাশি বিএনপির রাজনীতি করেন। ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়া করা মীর জাহাঙ্গীর এক পুত্র ও এক কন্যা সন্তানের জনক। আগামী ২৫ এপ্রিল অনুষ্ঠেয় মেহেরপুর পৌরসভা নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে তিনি শতভাগ আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন নির্বাচিত হলে এলাকার শিক্ষার মানউন্নয়নের পাশাপাশি মাদক, বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে কাজ করবেন। তিনি বলেন ভোটে সাংবাদিক লাকির সাখে আমার প্রতিন্দীতা হবে। তিনি সকলের কাছে দোয়া ও সমর্থন চেয়েছেন।
জিএফ মামুন লাকি:

শহরের পিয়াদা পাড়ার গোলাম কাউসারের তিন পুত্র ও ছয় কন্যর মধ্যে তৃতীয় জিএফ মামুন লাকি। ৪ প্রার্থীর মধ্যে তিনি বেশি শিক্ষিত। রয়েছে স্নাতক ডিগ্রি। সাংবাদিকতার পাশাপাশি জিএফ মামুন লাকি নিজ জমিতে চাষাবাদ করেন। তিনি ২ কন্য সন্তানের জনক। এর আগে তিনবার কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে ভোট যুদ্ধে অংশ নিয়ে তিনবারই তৃতীয় স্থান দখল করেছেন। এলাকায় পরিচিত ও সমাজসেবা ও শিক্ষত প্রার্থী হিসেবে এবার তার ভাল সম্ভাবনা আছে বলে ভোটারা মনে করেন। নির্বাচিত হলে এলাকার শিক্ষার মানউন্নয়নের পাশাপাশি মাদক, বাল্য বিবাহ, প্রতিরোধে কাজ করার অঙ্গিকার করে তিনি বলেন, রাস্তা, বাতিসহ পরিচ্ছন ওয়ার্ড গঠন করতে চাই।
মোয়াজ্জেম হোসেন:

শহরের নতুন পাড়ার আলেখ শেখের ৩ পুত্র ও ৩ কন্য সন্তানের ২য় সন্তান তিনি। স্বশিক্ষিত মোয়াজ্জেম হোসেন এর আগে দুবার ভোট করে দুবারই নির্বাচিত হয়ে এলাকার উন্নয়নে কাজ করেছেন। গত নির্বাচনে তিনি অংশ গ্রহন না করে এবার অসমাপ্ত কাজ শেষ করতে প্রার্থী হয়েছেন বলে তিনি জানান। তিনি বলেন এবার ভোটে জিএফ মামুন লাকির সাথে তার প্রতিদন্দীতা হবে। তার কোন কর্মী বাহিনী নেই। তিনি নিজে ও তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে নির্বাচনী বৈরিতা পার করছেন। তিনি জয়ের ব্যাপারে ৮০ ভাগ নিশ্চিত বলে জানিয়েছেন। জয়ী হলে অসমাপ্ত কাজ শেষ করার অঙ্গিকার করেন।
মোঃ রাজিব:

শহরের নতুন পাড়ার শাজাহান আলীর ২ পুত্র ও ২ কন্যা সন্তানের কনিষ্ট পুত্র মোঃ রাজিব। এবার প্রথম বারের মত নির্বাচনে অংশ গ্রহন করছেন। নির্বাচিত হলে এলাকার মাদক নির্মূলে কাজ করার অঙ্গিকার করছেন তিনি। তার সাথে বাকি তিন প্রার্থীর হাড্ডাহাড্ডি লাড়াই হবে বলে তিনি জানান। তিনি সকলের দোয়া ও সমর্থন চেয়েছেন।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.