Templates by BIGtheme NET
Home / নির্বাচন / মেহেরপুর মন্ত্রী পাওয়ায় ইতিহাসের দায় মোচন

মেহেরপুর মন্ত্রী পাওয়ায় ইতিহাসের দায় মোচন

মেহেরপুর নিউজ, ০৬ জানুয়ারি:
স্বাধীনতার সূতিকাগার মুজিবনগরের মেহেরপুরে মন্ত্রী পরিষদে প্রথম বারের মত স্থান পেয়েছেন ফরহাদ হোসেন। তিনি মেহেরপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি।

শনিবার বিকালে ফরহাদ হোসেনের নাম ঘোষনার পরপরই শহরসহ মেহেরপুর-১ আসনের বিভিন্ন এলাকায় নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষ মিষ্টি মুখ ও মিষ্টি বিতরণ করেন। স্থানীয় ব্যাক্তিরা তাদের প্রতিক্রিয়ায় জানান, ইতিহাসের দায় মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। স্বাধীনতার ৪৭ বছর পার হলেও ঐতিহাসিক মুজিবনগর বরাবরই থেকেছে উপেক্ষিত। মেহেরপুর বাসীর দির্ঘদিনের কাংখিত স্বপ্ন পূরণের পথে এক ধাপ এগিয়ে গেল মেহেরপুর।

মেহেরপুর জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব চান্দু বলেন, ৪৭ বছরের দায় ছিল মন্ত্রীত্ব না দেওয়া মুুজিবনগরের প্রতি। এ দায় মেহেরপুরবাসীর ছিল না এ দায় ছিল আওয়ামীলীগের। অনেক দেরি হলেও সে দায় মোচন করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন।

ফরহাদ হোসেন দোদুলের পিতা মরহুম মোহাম্মদ সহিউদ্দিন মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন। তিনি ১৯৭০ সালে মেহেরপুর থেকে তৎকালীন পাকিস্থান জাতীয় পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। ১৯৭৩ সালে মোহাম্মদ সহিউদ্দিন বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় সংসদ সদস্য হিসেবে মেহেরপুর আসন থেকে নির্বাচিত হন এবং ৭৫ সালে মেহেরপুর জেলার গর্ভনর নিযুক্ত হন। তিনি ৮৬ সালেও আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। ৬৭ বছর বয়সে ১৯৯০ সালে মৃত্যু বরণ করেন।তার তৃতীয় পুত্র ফরহাদ হোসেন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২য় বারের মতো এমপি নির্বাচিত হন। পেশায় তিনি ঢাকা সিটি কলেজের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ছিলেন।

চিকিৎসক সজীব উদ্দিন বলেন, মেহেরপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ফরহাদ হোসেনকে প্রতিমন্ত্রী করার মাধ্যমে প্রতিয়মান হয় যে বর্তমান সরকার বহু দেরিতে হলেও দেশের ঐতিহাসিক জেলাকে গুরত্ব দিচ্ছেন। এটার মাধ্যমে বোঝায় যায়, মুজিবনগরকে গুরত্ব দিয়েই তিনি মেহেরপুরে মন্ত্রীত্ব দিয়েছেন। আগামীতে মুজিবনগরসহ মেহেরপুরের উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করতে নবাগত প্রতিমন্ত্রী গুরত্বপূর্ন ভুমিকা পালন করবেন আশা করি।

এদিকে ফরহাদ হোসেন প্রতিমন্ত্রী হওয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছেন মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ খালেক, সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট খন্দকার আব্দুল মতিন, মেহেরপুর জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য এ্যাডভোকেট খন্দকার একরামুল হক হীরা, যুগ্ম সম্পাদক ইব্রাহিম শাহীন, মেহেরপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম রসুল, সাধারণ সম্পাদক বোরহান উদ্দীন চুন্নু,  জেলা মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সম্পাদক  জিয়াউদীন বিশ্বাস ও আমাম হোসেন মিলু, জেলা যুবলীগের আহবায়ক মাহফুজুর রহমান রিটনসহ আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.