Templates by BIGtheme NET
Home / বর্তমান পরিপ্রেক্ষিত / শিক্ষার্থীরা চিনবে প্রিয় ক্যাম্পাসের গাছগুলিকে

শিক্ষার্থীরা চিনবে প্রিয় ক্যাম্পাসের গাছগুলিকে

মেহেরপুর নিউজ, ১০ আগষ্ট:
হলদে করবী, রাধা চুড়া, মাধবী লতা, পলাশ, জারুল, হিজল, তমাল, কাঠবাদাম, রক্তকাঞ্চন, গন্ধরাজ, বহেরা, হরিতকী, অড়বড়ই, জলপাই, সফেদা, শরিফা এ ধরণের চারশ এর অধিক প্রজাতির উদ্ভিদ রয়েছে মেহেরপুুর পৌর ডিগ্রি কলেজে। এর মধ্যে রয়েছে ফলদ, ঔষধি ও ফুলের গাছ। রয়েছে গুল্মজাতীয় উদ্ভিদও। যাদের একটির সাথে আরেকটির কোন মিল নাই।
কোন গাছটির কি নাম, বৈজ্ঞানিক নাম কি, এর কার্যকারিতা কি এসবের অনেক কিছুই জানে কলেজের শিক্ষার্থীরা। শুধু শিক্ষার্থীরাই না শিক্ষকরাও সব গাছের সাথে পরিচিত নন।
এই সকল উদ্ভিদগুলোর সাথে পরিচয় ঘটাতে এবং কলেজ চত্বরকে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা রাখতে উদ্যোগ গ্রহণ করে কালের কণ্ঠ’র পাঠক সংগঠন শুভ সংঘ’র পৌর কলেজ কমিটির সদস্যরা।
গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে এ উপলক্ষে ‘উদ্ভিদ পরিচিতি ও পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম’ অনুষ্ঠানের যাত্রা শুরু হয়। প্রথম দিন শতাধিক গাছে গাছের নাম ও বৈজ্ঞানিক নাম সম্বলিত স্টিকার গাছের সাথে সাঁটানো হয়। পর্যায়ক্রমে বাকি গাছগুলোতেও নাম সম্বলিত ষ্টিকার সাটানো হবে।
শুভ সংঘ’র পৌর কলেজ শাখার উপদেষ্টা ও ওই কলেজের সহকারি অধ্যাপক ওয়াহিদা খাতুনের সভাপতিত্বে উদ্ভিদ পরিচিতি ও পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন পৌর কলেজের অধ্যক্ষ ও শুভ সংঘ জেলা কমিটির সভাপতি একরামুল আযীম।
কালের কণ্ঠ’র জেলা প্রতিনিধি ইয়াদুল মোমিনের সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন কলেজের ভুগোল ও পরিবেশ বিভাগের সহকারি অধ্যাপক মাসুদ রেজা, জেলা কমিটির যুগ্ম সম্পাদক আল ইকরাম সোহাগ, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল ওয়ালি রাজা, মুজিবনগর উপজেলার কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামন লাল্টু, পৌর কলেজ শাখার সভাপতি আশরাফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আমেদ মুন্না।
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা শাখার উপদেষ্টা শামিম জাহাঙ্গীর সেন্টু, মাহবুবুল হক পোলেন, সহসভাপতি মাহবুবুল হক মন্টু, যুগ্ম সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা হালাদার, নারী বিষয়ক সম্পাদক সুখী ইসলাম, সদস্য রফিকুল ইসলাম, কলেজ শাখার উপদেষ্টা প্রভাষক মাজহারুল ইসলাম, আলিব উদ্দিন, শাহনেওয়াজ উদ্দিনসহ কলেজ শাখার কমিটির অন্যনরা সদস্যরা।
শুভ সংঘ’র পৌর কলেজ শাখার সভাপতি ও দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী আশরাফুল ইসলাম তার অনুভুতি ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেন, অনেক আগে থেকেই এই কাজটি করার জন্য ব্যকুল হয়ে উঠেছিলাম। সঠিক নির্দেশনা না পাওয়ায় কাজটি করতে পারিনি। একটি গাছের নাম জানতে পারব না, তার উপকারিতা জানতে পারবা না? তাহলে আবার কিসের শিক্ষা লাভ করছি। অবশেষে কালের কন্ঠ-শুভ সংঘ’র মাধ্যমে উৎসাহ পেয়ে বন্ধুদের নিয়ে কাজটি করতে পেরে ভাল লাগছে।
ভুগোল ও পরিবেশ বিভাগের সহকারি অধ্যাপক মাসুদ রেজা তার বক্তব্য বলেন, বৃহত্তর কুষ্টিয়ার মধ্যে যত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে তার মধ্যে বড় উদ্ভিদ সংরক্ষনাগার হচ্ছে পৌর কলেজে। এখানে ফলদ, বনজ ও ঔষধি জাতীয় চারশ এর প্রজাতির বেশি উদ্ভিদ রয়েছে। প্রতিনিয়ত এর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে।
তিনি বলেন, পৌর কলেজ ক্যাম্পাসটিকে বোটানিক্যাল ল্যাবরেটরি বলা যায়। এখানে একটি গাছের সাথে আরেকটি গাছের মিল পাওয়া যাবেনা। এখানে প্রক্যেকটি গাছ আলাদা।
তিনি বলেন,২০০১ সাল থেকে কলেজের অধ্যক্ষ সহ অন্যান্য শিক্ষকদের অনুপ্রেরণায় আমি এই গাছগুলোকে বিভিন্নভাবে সংরক্ষন করেছি। প্রতিদিনি বিকালে আমি গাছগুলোর পরিচর্যা করি। এর আগে শিক্ষার্থীদের গাছের সাথে পরিচয় ঘটাতে বা গাছের গুনাগুন সর্ম্পকে জানানোর চেষ্টা করলেও তা পেরি উঠিনি। কিন্তু কিছু শিক্ষাথীর্রা (শুভ সংঘরে সদস্যরা) কয়েকদিন ধরে গাছগুলো পরিচর্যা ও পরিচ্ছন্নতা করছে দেখে খুব উজ্জিবিত হয়েছি। কারণ তারা নিজেরাই উদ্ভিদ গুলো সংরক্সনের উদ্যোগ নিয়েছে। শুভ সংঘকে ধণ্যবাদ জানায় তারা শিক্ষার্থীদের মাঝে এ ধরণের সৃজনশীল উদ্য্গো তৈরিতে ভুমিকা রেখেছে।
প্রধান অতিথি অধ্যক্ষ একরামুল আযীম বলেন, শুভ সং’র কলেজ শাখা কমিটির গঠনের পরই ওই শিক্ষার্থীরা গাছগুলোর সাথে সকলের পরিচয় ঘটিয়ে দিতে চায় এবং কলেজ ক্যাম্পাসটিকে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে চাই। তাদের এ ধরণের উদ্যোগ শুনেই আমি সাড়া দিয়েছি। শুভ সংঘের সাথে জড়িত হয়েই সুন্দর একটি উদ্যোগের মাধ্যমে তাদের যাত্রা শুরু করলো। তাদের সাধুবাদ জানায়।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful