Templates by BIGtheme NET
Home / বর্তমান পরিপ্রেক্ষিত / সাংসারিক খুঁনসুটির গল্প রেখে অংশ নিলেন কুইজ প্রতিযোগীতায়

সাংসারিক খুঁনসুটির গল্প রেখে অংশ নিলেন কুইজ প্রতিযোগীতায়

মেহেরপুর নিউজ, ০৪ এপ্রিল:
আমার বাচ্চা ঠিক মত খায় না, জানেন ভাবি মেয়ের বাবা না মেয়ের লেখাপড়ার দিকে একটুও খেয়াল রাখে না, আর এক জন হয়তো বলেন এদিক দিয়ে অমুকের বাবা কোন ছাড় দেয় না । সংসারের খুঁনসুটি নিয়ে এ ধরনের নানান গল্পগুজব করে কাটানো কিন্ডার গার্টেন স্কুলের শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের নিত্যদিনের গল্প এগুলো। সেই নিত্য দিনের রুটিন ভেঙে মেহেরপুর কালের কণ্ঠ-শুভ সংঘ আয়োজন করেছিল এক ব্যতিক্রম মেধাভিত্তিক কুইজ প্রতিযোগীতা। প্রতিযোগীতায় অংশ নিয়েছিলেন ৬০ জন অভিভাবক এবং ৪র্থ ও ৫ম শ্রেণীর ৩০ জন শিক্ষার্থী। উভয় গ্রুপের ছিল ভিন্ন প্রশ্ন ভিন্ন পরীক্ষা।
বুধবার সকাল সাড়ে ৯টা শুভ সংঘ মেহেরপুর জেলা শাখার সভাপতি অধ্যক্ষ একরামুল আযীমের নেতৃত্বে সাত সদস্যর একটি টিম অনুষ্ঠান বাস্তবায়ন করার জন্য হাজির হয়েছিলেন মেহেরপুরের ঐতিহ্যবাহী অক্স্রফোর্ড কিন্ডার গার্টেন স্কুলে। সাথে ছিলেন কালের কণ্ঠর মেহেরপুর প্রতিনিধি ইয়াদুল মোমিন।
স্কুলে ঢুকেই চোখে পড়ে স্কুল ক্যাম্পাসের বিভিন্ন ছায়া শীতল স্থানে এক একটি গ্রæপ করে অভিভাবক মায়েরা গল্প করছেন তাদের নিত্যদিনের নানা বিষয় নিয়ে। তবে তাদের কাছাকাছি গিয়ে জানা গেল ওই দিনের গল্পটা ছিল কুইজ পরীক্ষা নিয়ে। কি আসবে, কি উত্তর দিব, পারব কিনা? না পারলে লজ্জায় পড়ি কি না। নানান আলোচনায় সময় কাটাচ্ছিলেন অভিভাবকরা। একজন অভিভাবক শুভ সংঘ’র কোষাধাক্ষ্য আফসানা বিশ্বাস তিথিকে বলেই বসলেন বলেন না কি প্রশ্ন হয়েছে। কঠোর গোপনীয়তার কারণে তিথি তাদের কোন সহযোগীতায় করতে পারেনি তখন।
শুরু হলো অনুষ্ঠান পর্বের। প্রতিষ্ঠানের পরিচালক জানে আলম মাইকে ঘোষনা দিলেন সকল অভিভাবককে মূল ক্যাম্পাসের অনুষ্ঠানস্থলে হাজির হওয়ার অনুরোধ জানিয়ে। আর ৪র্থ ও ৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের আহবান জানালেন তাদের নির্দিষ্ট পরীক্ষা কক্ষে আসন গ্রহণের জন্য।
সকাল ১০টার দিকে শুরু হলো শিক্ষার্থীদের ২০ মার্কের এমসিকিউ পরীক্ষা সময় ছিল ২০ মিনিট। পরীক্ষার বিষয়বস্তু ছিল মেহেরপুরের মুজিবনগেরর ইতিহাস, মুক্তিযদ্ধের ইতিহাস ও সাধারণ জ্ঞান বিষয়ক। শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা শেষ হওয়ার তাদের খাতা মূল্যায়নে ব্যস্ত হয়ে পড়লো শুভ সংঘ’র সাধারণ সম্পাদক মান্নাফ মান্না ও কোষাধাক্ষ আফসানা বিশ্বাস তিথি।
এর পরপরই যুগ্ম সম্পাদক আল ইকরাম সোহাগ, সদস্য নাসিমুল জুনায়েদ ও আসিফ ইকবাল শুভ অভিভাবকেদর পরীক্ষার জন্য প্রশ্নপত্র দেওয়া শুরু করে। ১০টা ২৫ মিনিটি শুরু হলো অভিভাবক মায়েদের ১২ মার্কের পরীক্ষা। তাদের সময় দেওয়া হয়েছিল ১৫ মিনিট। সাংসারিক বিভিন্ন বিষয়সহ সাধারণ জ্ঞান নিয়ে প্রশ্ন ছিল তাদের। পরীক্ষা শেষ হলো। অভিভাবকদের খাতা মূল্যয়ন করতে সময়টা একটু বেশিই লাগলো। অবশেষ ১১টা ১৫ মিনিটি শুরু হলো দ্বিতীয় পর্ব। সবার চোখ মাইকে কার নাম ঘোষনা হয়। কে হচ্ছেন পুরস্কার বিজয়ী। দুরু দুরু বুক কাপছে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের।
কালের কণ্ঠ’র প্রতিনিধি ইয়াদুল মোমিন শিক্ষার্থীদের নাম ঘোষনা করলেন। ৩০ জনের মধ্যে ১ম পুরস্কার বিজয়ী ৪র্থ শ্রেণীর রিওন আলী, ২য় হলো ৫ম শ্রেণীর স্নিগ্ধা আক্তার পিউ এবং ৩য় স্থান অর্জন করে একই শ্রেণীর আনান হোসেন।
পরবর্তিতে ঘোষনা করা হয় অভিভাবকদের নাম। ৬০ জন অভিভাবকদের মধ্যে প্রথম ৫জনকে পুরস্কুত করা হয়। ১২ মার্কের মধ্যে ১০ নম্বর পেয়ে প্রথম পুরস্কার বিজয়ী হোন সান্তনা খাতুন। বাকি ৪টি পুরস্কার নির্ধারণে দেখা দেয় জটিলতা। ৯ ন¤^য় পেয়ে ২য় স্থান অর্জন করেন ৯ জন। অতিথিদের সিদ্ধান্তে ৯জনের মধ্যে লটারি করে ৪জনকে করা ২য় পরবর্তি পুরস্কারের যোগ্য হিসেবে। তাদের মধ্যে ২য় স্থান লাকী রহমান, ৩য় স্থান নার্গিস ফাতেমা, ৪র্থ স্থান নাজমিন নাহার এবং ৫ম স্থান অর্জন করেন মোছা: দিলরুবা।
বিজয়ী সকলকে মঞ্চে ডেকে নেওয়া হয়। সভাপতি একরামুল আযীমের সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন মেহেরপুর জেলা প্রেসক্লাবের সহসভাপতি মাহাবুব চান্দু, অক্সফোর্ড কিন্ডার গার্টেনের পরিচালক জানে আলম।
বিজয়ী ৫ অভিভাবক ও ৩ শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরস্কার হিসেবে দেওয়া হয় কালের কণ্ঠ’র সম্পাদক ও দেশ বরণ্য কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলনের লেখা মুক্তিযুদ্ধের গল্প, নয়মাস, ভুতগাছ ও ডাকাতরাও মানুষ নামের বিভিন্ন বই। বাকি ২৭ শিক্ষার্থীকে সান্তনা পুরস্কার দেওয়া হয়।
পরিচালক জানে আলম বলেন, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের নিয়ে এ ধরণের মেধাভিত্তিক প্রতিযোগীতা আয়োজন করায় তাঁর প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে কালের কণ্ঠ শুভ সংঘকে ধন্যবাদ জানায়। ভবিষ্যতেই এ ধরণের যে কোন ভাল অনুষ্ঠান করতে চাইলে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে সহযোগীতা করা হবে।
সাংবাদিক মাহাবুব চান্দু বলেন, শিক্ষার পাশাপাশি এ ধরণের মেধাভিত্তিক প্রতিযোগীতা শিক্ষার্থীদের মানসিক শ্রি বৃদ্ধিতে ভুমিকা রাখবে।
সভাপতির বক্তব্যে অধ্যক্ষ একরামুল আযীম বলেন, শুভ কাজে সবার পাশে শ্লোগান বুকে ধারণ করে শুভ সংঘ মেহেরপুর বিভিন্ন ভাল কাজ করে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে অনেকগুলো ভাল কাজ শুভসংঘ করেছে। যে কোন ভালকাজের সাথে শুভসংঘ থাকবে। শেষে অক্সফোর্ড কিন্ডার গার্টেন কতৃপক্ষ ও অভিভাবক সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠান শেষ করেন।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.