Templates by BIGtheme NET
Home / বিশেষ প্রতিবেদন / ৩৩ বছরে মেহেরপুর জেলা। কবে হবে কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন??

৩৩ বছরে মেহেরপুর জেলা। কবে হবে কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন??

muzahid-picমুজাহিদ মুন্না, মেহেরপুর নিউজ, ২৪ ফেব্রুয়ারী:
মেহেরপুরকে জেলা হিসেবে ঘোষণা করা হয় ১৯৮৪ সালে এই দিনে (২৪ ফেব্রুয়ারি) । ৩৩ বছর পেরিয়ে গেলেও জেলাটিতে এখনও কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন হয়নি বলে মনে করেন এ জেলার মানুষ।
অথচ বাংলাদেশের স্বাধীনতায় সবচেয়ে বেশি অবদানে মেহেরপুরের। ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল মেহেরপুরের মুজিবনগরের একটি আম বাগানে শপথ নেন দেশের প্রথম সরকার। ইতিহাসের অংশ হয়ে যায় মেহেরপুর।

মুজিবনগর সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টার ফলে মাত্র ৯ মাসের মুক্তিযুদ্ধে দেশ স্বাধীন হয়। বাংলাদেশ পায় একটি লাল-সবুজ পতাকা। মেহেরপুর হয় দেশের প্রথম ও অস্থায়ী রাজধানী। কিন্তু দেশের ৪৪ বছর বা মেহেরপুর জেলা হিসাবে ৩৩ বছর কি পেল মেহেরপুর এই প্রশ্ন এখন এই জেলার মানুষের?

দরবেশ মেহেরুল্লার স্মৃতি বিজড়িত, স্বামী নিগমানন্দর জন্মচারন, নিজ ধর্মের প্রবক্তা বলরামহাড়ি, ব্রিটিশ বেনিয়াদের নির্যাতনের সাক্ষি হয়ে দাঁড়িয়ে থাকা আমঝুপি নিল কুটিসহ বহু নিলকুটির স্থাপনা, ঐতিহাসিক মুজিবনগরসহ আম, লিচু, কাঁঠালে ভরপুরের জেলা মেহেরপুর। ৩টি উপজেলা, দুইটি পৌরসভা, ১৮ টি ইউনিয়ন ও ২৭২টি গ্রাম নিয়ে মেহেরপুর জেলা।
মেহেরপুর জেলার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার লোকজনের সঙ্গে কথা বলে তারা আক্ষেপের সুরে বলেন, ইতিহাস ঐতিহ্যকে ধারণ করে বাংলাদেশের মানচিত্রে অনেক খানি যায়গা দখল করে আছে আমাদের মেহেরপুর কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য দেশের ঐতিহ্যবাহী জেলা হলেও সবসময় অবহেলিত। তার বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ, রেলপথ, শিল্পকারখানাহীন মেহেরপুর একটি কৃষিনির্ভর জেলা। অথচ কৃষিতেও নেই উন্নত প্রযুক্তি।
এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে মেহেরপুর স্থল বন্দর বাস্তবায়ন আন্দোলন ফোরামের মুখোপাত্র এম এ এস ইমন বলেন, মেহেরপুর একটি ঐতিহাসিক জেলা। এই জেলাতে  বাংলাদেশের প্রথম সরকার শপথ গ্রহণ করে দেশের ইতিহাসের অংশ হয়ে যায়। সীমান্তবর্তী জেলা হওয়ার কারণে মেহেরপুরবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি এখানে একটা স্থল বন্দর নির্মাণের আমরা তার দাবিতে দীর্ঘদিন আন্দোলন করে যাচ্ছি। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাব। এ ছাড়াও আজ মেহেরপুরের তরুণ সমাজের মধ্যে একটা জাগরণ দেখা যাচ্ছে। এটা ধরে রাথতে হবে। তবে এ জেলার উন্নয়ন সম্ভব।
মেহেরপুর পৌর মেয়র মোতাছিম বিল্লাহ মতু বলেন, এ অঞ্চলের র্দীঘ দিনের দাবি একটা স্থল বন্দর ও ভৈরব নদী পূর্ণ খননের। খনন চলছে, আগামীতে স্থল বন্দর ও বিশ্ব বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করতে হবে। এ ছাড়াও তিনি বলেন, মেহেরপুর পৌরসভা একটি আধুনিক পৌরসভা আগামী দিনে এই পৌরসভাকে আরো আধুকিআয়ন করা হবে। রেল পথের বিষয়ে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী মেহেরপুরে রেল পথের আওতায় চলে এসেছে সেটা তাড়াতাড়ি বাস্তবায়ন চান তিনি।

জাগো মেহেরপুরের মুখোপাত্র শোয়েব রহমান বলেন, একটা জেলার উন্নয়ন করতে হলে সবার আগে সে জেলাকে মাদক মুক্ত করতে হবে। সেই সাথে শিক্ষা নিয়ে কাজ করতে হবে। তবেই জেলার উন্নয়ন সম্ভব। মেহেরপুর দেশের সীমান্তবর্তি জেলা হওয়ার কারনে এ জেলাতে মাদকের প্রবণতা অনেক বেশি। তবে মেহেরপুরের যুব সমাজ আজ মাদক মুক্ত জেলা গড়তে মাদকের বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষণা করছে। তিনি মেহেরপুরে একটি মেডিকেল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় করার দাবি জানান।

বিশিষ্ট সাংবাদিক রবিউল আলম বলেন, মেহেরপুর দেশের প্রথম রাজধানী। ১৭ এপ্রিল ১৯৭১ সালে এ জেলাতে দেশের প্রথম সরকার গঠিত হয়েছে। তাই ওই দিবসটিকে জাতীয় শপথ দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার দাবি জানান তিনি। এ ছাড়াও মেহেরপুরের পুরের মুজিবনগরে বছরে একটি করে জাতীয় সংসদের অধিবেশন করার দাবি জানান।

মেহেরপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ফরহাদ হোসেন  বলেন, মেহেরপুর ৩৩ বছর বহু সময় হলেও মেহেরপুরে চোখে পড়ার মত তেমন কোন উন্নয়ন হয়নি। তবে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর আমরা বেশে কিছু উন্নয়ন কর্মকাণ্ড করেছি। মেহেরপুরে মানুষের প্রাণের দাবি ভৈরব নদী পূর্ণ খননের কাজ চলছে। স্বাধীনতার সূতিকাগার মুজিবনগরকে অনেক আধুনিকায় করা হয়েছে। রেল পথের অনুমোদন হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ ও স্থল বন্দর স্থাপনের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তিনি আরও বলেন, আগামীতে মেহেরপুরে শিল্পকলকারাখানা গড়ে তোলার জন্য বিনিয়োগকারীদের সাথে যোগাযোগ চালিয়ে যাচ্ছি। খুব অল্প সময়ের মধ্যে মেহেরপুরকে একটি আধুনিক ও উন্নত জেলা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করা হবে।

লেখক: জেলা প্রতিনিধি, পূর্বপশ্চিমবিডি ডট কম, সম্পাদক- শিকড়, ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি: মেহেরপুর নিউজ।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.