Templates by BIGtheme NET
Home / তথ্য প্রযুক্তি / বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস আবিস্কার ক্ষুদে বিজ্ঞানীদের

বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস আবিস্কার ক্ষুদে বিজ্ঞানীদের

Meherpur Science Fair Pic.মেহেরপুর নিউজ,২৩ জানুয়ারী:
বাল্য বিবাহ প্রতিেেরাধে বিজ্ঞানও হতে পারে হাতিয়ার বা কৌশল। এমন একটি উদ্ভাবনের কথাজানালেন ক্ষুদে বিজ্ঞানীরা। তারা জানান, জেলার প্রতিটি গ্রামের সাথে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গ্রাম উল্লেখ করে ইলেকট্রিক সংযোগের সাথে একটি বেল বা বাতি থাকবে। আর প্রতিটি গ্রামে থাকবে একটি করে সুইচ। যে গ্রামে বাল্যবিবাহ অনুষ্ঠিত হবে সেই গ্রামের সুইচ পুশ করলেই সেই গ্রামের নামাঙ্কিত বাতি জ্বলে উঠবে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে, সাথে বেজে উঠবে বেল। সাথে সাথে জেলা প্রশাসন থেকে সেই গ্রামে অভিযান চালিয়ে বন্ধ করবে বাল্য বিবাহ। এভাবেই বর্ননা করছিলো মেহেরপুর সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর ছাত্রী ইশরাত এ বারী। সে অতিথিদের মাঝে এভাবেই বর্ণনা করছিলো তাদের উদ্ভাবিত বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে ইলেকট্রনিক ডিভাইসের ব্যাবহার।
জিনিয়াস ল্যাবরেটরী স্কুল এন্ড কলেজের দশম শ্রেনীর ছাত্রী সোহরাভ হোসেনের নেতৃত্বে একটি দল উদ্ভাবন করেছে ভ’মিকম্পের আগে সর্তকতা মূলক শব্দযন্ত্র। টিম লিডার সোহরাভ হোসেন বলে, শহর থেকে কয়েকশ কিলোমিটার সাগরের তলদেশে বসানো হয়েছে একটি ডিভাইস। সে বলে যেহেতু শব্দের থেকে বিদ্যুতের 1বেগ বেশি তাই ভুমিকম্প হওয়ার আগেই বৈদ্যুতিক তারের মাধ্যমে শহরের বসানো সাইরেন যন্ত্রবেজে উঠবে । তখনই মানুষ ভ’মিকম্প থেকে বাঁচতে সতর্ক অবস্থান নেবে।
এছাড়াও কৃত্রিম বিদ্যুৎ উৎপাদন যন্ত্র, নিরাপত্তাকর্মীবিহীন ভবনকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভবন রক্ষা, সোলার বিদ্যুৎ, অত্যাধুনিক বাসভবনসহ নানা ধরনের উদ্ধাবনী আবিস্কার করেছে বিভিন্ন কলেজ ও বিদ্যালয়ের ক্ষুদে বিজ্ঞানীরা।
শনিবার বিকাল সাড়ে ৪টার সময় মেহেরপুর সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জাতীয় বিজ্ঞান প্রযুক্তি যাদুঘরের পৃষ্ঠপোষকতায় তিন দিন ব্যাপী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো: হেমায়েত হোসেন। পরে তিনি মেলার বিভিন্ন প্রজেক্ট পরিদর্শন করেন। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুভাষ চন্দ্র ওঝার সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার জুবায়ের হোসেন চৌধুরী, এনডিসি মোহাম্মদ নুর এ আলম, প্রভাষক আব্দুর রাজ্জাক ।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, বিজ্ঞান মানুষের জীবনকে পাল্টে দিয়েছে। বিশ্বের কোন প্রাান্তে কি হচ্ছে তা মুহুর্তের মধ্যে জানতে পারছি বিজ্ঞানের মাধ্যমে। বিজ্ঞান থেমে গেলে উন্নয়নের চাকা থেমে যাবে। কিভাবে শক্তিকে কাজে লাগানো যায় তা বিজ্ঞানের মাধ্যমেই আমরা জেনেছি। শিক্ষার্থীদের উদ্যোশে প্রধান অতিথি বলেন, তোমরা বিজ্ঞান চর্চা করে বিজ্ঞানের অবদানকে কাজে লাগিয়ে নিজেদে কে গড়ে তোলো। দেশকে আরো উন্নতি করে তোলে। ২৩ জানুয়ারী থেকে ২৫ জানুয়ারী তিন দিন ব্যাপী এ মেলায় আরো থাকবে বিজ্ঞান বিষয়ক উপস্থিত বক্তৃতা ও বিতর্ক উৎসব।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful