Templates by BIGtheme NET
Home / কৃষি সমাচার / মেহেরপুরে ফসল বিধ্বংসী ‘ফল আর্মি ওয়্যার্ম’ পোকা সনাক্ত

মেহেরপুরে ফসল বিধ্বংসী ‘ফল আর্মি ওয়্যার্ম’ পোকা সনাক্ত

মেহেরপুর নিউজ, ১২ ফেব্রুয়ারি:
একশ কিলোমিটার দুরে যেতে পারার শক্তিসম্পন্ন এবং পুরো ক্ষেত নষ্ট করার মত ভয়াবহ ক্ষতিকর ‘ফল আর্মি ওয়্যার্ম’ নামের একটি পোকার বংশ আবিস্কার করেছে মেহেরপুরের কৃষি বিশেষজ্ঞগণ।
মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ভারত সীমান্তবর্তী একটি ভুট্টার জমিতে ফসল বিধ্বংসী এ র পোকা অবস্থান করছে। ইতোমধ্যে এলাকার ভুট্টার চরম ক্ষতি করে চলেছে পোকাটি।
আক্রমন শুরু হলে কয়েকদিনের মধ্যে জমির ফসল শেষ হয়ে যায়। কৃষকরা বিভিন্ন ধরণের কীটনাশক প্রয়োগ করেও পোকাটির ক্ষতি থেকে ফসল রক্ষা করতে পারছিলনা।
খবর পাওয়ার পর কৃষি বিশষজ্ঞরা কয়েকদিন ওই মাঠের জমিতে অবস্থান করে পোকাটি সনাক্ত করেন। পোকাটি ৮০ ধরণের ফসলের ক্ষতি করতে পারে। পোকাটি ভারত থেকে এসছে বলে কৃষি বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন। এই পোকা বিশেষ করে ভুট্টার বেশী ক্ষতি করছিল। তাকে সনাক্তে এখন ফসল রক্ষা সম্ভব হবে বলে আশার বাণি শুনিয়েছেন কৃষিবীদরা।
ভারত সীমান্ত সংলগ্ন মেহেরপুরর গাংনী উপজেলার তেঁতুলবাড়িয়া গ্রামের কৃষক স্বপন আলীর ভুট্টার জমিতে পাওয়া গেছে ভয়ানক পোকা ‘ফল আর্মি ওয়্যার্ম। যে ফসলের জমিতে এই পোকার আক্রমন শুরু হচ্ছিল। কয়েকদিনের মধ্যে সেই জমির ফসলের পাতা থেকে শুরু করে কান্ড পর্যন্ত খেয়ে ফেলছিল। সবচেয়ে বেশী ক্ষতি করছিল ভুট্টার জমিতে। যেসব জমির গাছে ইতোমধ্যে আক্রমন করেছে সেই গাছ গুলোতে আর ভুট্টা হবে না। এর ফলে লোকসানে পড়বে কৃষক।
ফল আর্মি ওয়্যার্র্মের বৈশিষ্ট্য হলো এর মুখের দিকটা ইংরেজী ওআই আকৃতির এবং পিছনের দিকে চারটি কালো ফোটা আছে। যা অন্যান্য ল্যাদা পোকার চেয়ে আলাদা। একটি পরিণত বয়সের আর্মি ওর্য়্যাম অসংখ্য বাচ্চা দিতে পারে। দিনের বেলায় পোকা গুলো গাছের কান্ডের মধ্যে ও মাটিতে অবস্থান করলেও সন্ধ্যার পর থেকে ছড়িয়ে পড়ছে প্রতিটি গাছে। এজন্য কৃষকরা রাতের বেলা জমিতে গিয়ে পোকা ধরে ধরে মেরে ফেলছে।
কৃষি বিভাগ জানিয়েছে, এই পোকাটি আমেরিকা ও কানাডায় অনেক আগেই সনাক্ত হয়েছে। কীটনাশক দিয়ে দমন করা সম্ভব হয়নি। পরবর্তীতে এটি ভারত হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করছে তাও মেহেরপুরে এটিই প্রথম। এই পোকা দিনে অন্তত ১০০ কিলোমিটার পাড়ি দিতে এবং দ্রুত বংশ বিস্তার করতে পারে।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের হিসেবে ভুট্টা চাষ লাভজনক হওয়ায় জেলায় এবারে ১৫ হাজার হেক্টর জমিতে ভুট্টার চাষ হয়েছে। যা গত বছরের চেয়ে বেশি।
কৃষক স্বপন আলী জানান, দিন দশেক আগে আমার ভুট্টা ক্ষেতে পোকার আক্রমন চোখে পড়ে। এই পোকা আগে কখনও দেখিনি। কৃষি বিভাগের মাধ্যমে জানতে পারি এটি ফল আর্মি ওর্য়্যাম পোকা। এই পোকা দমনে কয়েক দফা কীটনাশক ছিটিয়েও কোন কাজ হয়নি। ফসল বাচাঁতে সুচ ও স্বর্ণা দিয়ে খুঁজে বের করে মেরে ফেলতে হচ্ছে। কারণ চোখের সামনে পুরো ক্ষেত নষ্ট হয়ে যাচ্ছিল।
মেহেরপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ড. মো. আক্তারুজ্জামান জানান, চরম ভয়ঙ্কর এই পোকা। একশ কিলোমিটার দুরে যেতে পারে। বাতাসের গতিবেগ থাকলে পোকাটি আরও অনেক দুরে যেতে পারে। এটি ফসলের জন্য চরম ক্ষতিকর। সীমান্তবর্তী জেলা হওয়ায় পার্শবর্তী দেশ ভারত থেকে এটি আমাদের দেশে প্রবেশ করতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিধ্বংসী এই পোকাটি ফসলের শতভাগ ক্ষতি করতে পারে।
তিনি জানান, যেহেতু পোকাটি সনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে এখন একে দমন করা যাবে। এই পোকা কীটনাশক দিয়ে দমন করা বেশ কষ্টকর। দেখা মাত্রই হাত দিয়ে মেরে ফেলতে হবে না হলে দ্রুত বংশ বিস্তার করে। এজন্য জমিতে প্লাবন সেচ দিতে হবে। যেহেতু এই পোকা মাটির নিচে থাকে বলেই জৈব বালাইনাশক দিয়ে নির্মূল করা সম্ভব, না হলে ভয়ানক অবস্থার সৃষ্টি করতে পারে। এজন্য কৃষি বিভাগ বিষয়টি নিয়ে তৎপর রয়েছে।

Facebook Comments
Social Media Sharing
by webs bd .net
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.